বিস্তারিত

হার্ট ভালো রাখার উপায়

bdnews24, prothom-alo ছবি : সংগ্রহকৃত

হার্ট ভাল রাখতে মানসিক সুস্থতা ও আবেগের উপর নিয়ন্ত্রণ রাখা গুরুত্বপূর্ণ। তিনটি ইমোশন কন্ট্রোল করলেই সুস্থ থাকতে পারে হার্ট।

রাগ: গবেষকরা জানাচ্ছেন অতিরিক্ত রাগ বা রাগ পুষে রাখার কারণে হার্ট অ্যাটাক পর্যন্ত হতে পারে। রাগের মতো নেগেটিভ ইমোশন আমাদের অস্থির করে তোলেও রক্তচাপ বাড়িয়ে দেয়। ফলে রক্ত জমাট বাঁধার সম্ভাবনা বাড়ে। তাই কিছু এক্সারসাইজের পাশাপাশি রাগ নিয়ন্ত্রণ করলে রক্তে ভাল কোলেস্টেরলের মাত্রা বাড়ে, রক্তচাপ কমে ও হার্ট অ্যাটাকের ঝুঁকি কমে।

অবসাদ: হার্টের বিভিন্ন সমস্যার সঙ্গে অবসাদ, উৎকণ্ঠা, স্ট্রেসের সম্পর্ক খুব গভীর। অনেক দিন ধরে অবসাদে ভুগলে অবশ্যই হার্টের স্বাস্থ্য পরীক্ষা করান বা হার্টের সমস্যা হলে অবসাদে ভুগছেন কিনা তা পরীক্ষা করিয়ে নিন।

মানসিক ক্লান্তি: ক্লান্তি শুধু শারীরিক হয় না। কাজের চাপ, ব্যস্ততা, সব দিক সামলাতে সামলাতে আমরা মানসিক ভাবেও ক্লান্ত হয়ে পড়ি। দীর্ঘ দিন ধরে মানসিক চাপ আমাদের হার্ট ও মস্তিষ্কের উপর ক্ষতিকারক প্রভাব ফেলে।

খাদ্য তালিকায় কমাতে থাকুন চর্বির পরিমাণ : খাবারে থাকা চর্বি হৃৎপিণ্ডকে অকার্যকর করে তুলতে ভূমিকা রাখে। সুতরাং খাদ্য তালিকা থেকে নিয়মিতভাবে চর্বির পরিমাণ কমাতে থাকুন, তবে অবশ্যই পুষ্টি তালিকার নিুক্রম ছাড়িয়ে যাবেন না।

ত্বকে দিন সূর্যের আলো : প্রতিদিন ২০ মিনিট করে সূর্যের আলোর সংস্পর্শে এলে শরীরে নাইট্রিক অক্সাইডের উৎপাদন ক্ষমতা বাড়ে, যা রক্তচাপকে কমাতে কার্যকর ভূমিকা রাখে।

সময়মতো ঘুম: যাদের অনিদ্রা আছে, তারা অন্যদের চেয়ে ৪৫ শতাংশ বেশি হার্ট এটাকের ঝুঁকি নিয়ে বসবাস করছেন। তাই প্রয়োজন অনুযায়ী ঘুমের জন্য প্রতিদিন বেশি বেশি শারীরিক পরিশ্রম করার আহবান জানিয়েছেন বিজ্ঞানীরা।

সংবাদের ধরন : স্বাস্থ্য কথা নিউজ : নিউজ ডেস্ক