বিস্তারিত

সাংসদ মিমি চক্রবর্তী প্রয়োজনীয় ত্রাণসামগ্রী দিলেন

ছবি : সংগ্রহকৃত

কেটে গিয়েছে বুলবুলের আশঙ্কা। রবিবার দুপুরের পর থেকেই দেখা মিলেছে রোদের। শনিবার সারারাত কট্রোলরুমে থেকে যাবতীয় দেখভাল করেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। সোমবার সকালে আকাশপথে ঘূর্ণিঝড় বিধ্বস্ত নামখানা-বকখালি-সহ দক্ষিণ ২৪ পরগণার বিস্তীর্ণ অঞ্চল ঘুরে দেখলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। বৈঠক সারলেন এলাকার প্রশাসনিক কর্তাদের সঙ্গে। বুলবুলে মৃতদের প্রত্যেকের পরিবারকে ২ লক্ষ টাকা ক্ষতিপূরণ দেওয়ার কথাও ঘোষণা করেন তিনি। ক্ষতিগ্রস্ত বাঁধও দ্রুত সারাইয়ের নির্দেশ দিয়েছেন তিনি। সাংসদ মিমি চক্রবর্তী বুলবুলের আশঙ্কার নিজের লোকসভা কেন্দ্র নিয়ে বেশ চিন্তিত ছিলেন। নিজের সোশ্যাল মিডিয়ায় তিনি প্রয়োজনীয় নম্বরও দিয়ে দিয়েছিলেন।

বড়সর ক্ষতি না হলেও বুলবুলের দাপটের মুখে পড়েছে বারুইপুরের একাংশ। রবিবার দলীয় কর্মীদের সঙ্গে নিয়ে সেসব এলাকা পরিদর্শনে যান মিমি। তাঁর পঞ্চায়েত এলাকার বেশ কিছু অংশ এখনও বিদ্যুৎহীন। এলাকার বাসিন্দাদের হাতে ত্রিপল তুলে দিলেন মিমি। পৌঁছে দিলেন প্রয়োজনীয় ত্রাণসামগ্রীও। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ও তাঁর দলের কর্মীরা যেভাবে সকলের পাশে দাঁড়িয়েছেন তাতে বারবার তাঁদের ধন্যবাদ জানিয়েছেন মিমি।

সংবাদের ধরন : বিনোদন নিউজ : নিউজ ডেস্ক