বিস্তারিত

যে যেখানে আছেন, সেখানেই ঈদ উদযাপন করুন

ছবি : সংগ্রহকৃত

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, ঈদ উপলক্ষে ছোটাছুটি না করে, যে যেখানে আছেন, সেখানেই ঈদ উদযাপন করুন। আর যাঁরা বিত্তশালী আছেন, তাঁরা দুস্থদের সহযোগিতা করুন, সেটা আরও বেশি সওয়াবের কাজ হবে বলে আমি মনে করি।

গণভবণ থেকে ভার্চুয়ালি চারটি মেরিন অ্যাকাডেমি, পায়রা বন্দরে ক্ষতিগ্রস্ত ৫০০ পরিবারকে নতুন বাড়ি প্রদান এবং ড্রেজারসহ শতাধিক নৌযান উদ্বোধনকালে এ কথা বলেন প্রধানমন্ত্রী। এ সময় স্বাস্থ্যবিধি মেনে সবাইকে সুরক্ষিত থাকার আহ্বান জানান তিনি।

উদ্বোধন করা অবকাঠামো ও জলযানের মধ্যে রয়েছে- বিআইডব্লিউটিএর ২০টি কাটার সাকশন ড্রেজার, ৮৩টি ড্রেজার সহায়ক জলযান, প্রশিক্ষণ জাহাজ ‘টিএস ইলিয়াস আহমেদ চৌধুরী (দাদা ভাই)’, বিশেষ পরিদর্শন জাহাজ ‘পরিদর্শী’, নবনির্মিত নারায়ণগঞ্জ ড্রেজার বেইজ, বিআইডব্লিউটিসির দুটি উপকূলীয় যাত্রীবাহী জাহাজ ‘এমভি তাজউদ্দীন আহমদ’ ও ‘এমভি আইভি রহমান’, পায়রা বন্দর কর্তৃপক্ষের ‘পায়রা আবাসন’ পুনর্বাসন কেন্দ্র এবং পাবনা, বরিশাল, রংপুর ও সিলেট মেরিন একাডেমি।

নৌপরিবহন মন্ত্রণালয়ের দাবি, এসব অবকাঠামো এবং জলযান স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তীতে নৌ সেক্টরের উন্নয়নে নতুন মাত্রা সংযোজন করবে। মুজিব শতবর্ষ ও স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তীতে বাংলাদেশে তৈরি ২০টি কাটার সাকশন ড্রেজারসহ শতাধিক নৌযান একসঙ্গে উদ্বোধন বাংলাদেশের ইতিহাসে উল্লেখযোগ্য মাইলফলক হিসেবে চিহ্নিত হয়ে থাকবে।

নবসৃষ্ট অবকাঠামো ও জলযান’ নদীর নাব্যরক্ষা, নৌপথ উন্নয়ন, উপকূলীয় এলাকার যাত্রী পরিবহন ও দক্ষ নৌকর্মী গঠনে ব্যাপক ভূমিকা রাখবে।

সারা দেশে নৌপথের উন্নয়ন ও আধুনিকায়নে সরকারের মহাপরিকল্পনা তুলে ধরে এ সময় শেখ হাসিনা জানান, আগামী ২০২৪-২৫ সালের মধ্যে সারা দেশে ১০ হাজার কিলোমিটার নৌপথ খনন করা হবে।

নৌযানে যাতায়াতকারী এবং পরিচালনাকারী সবাইকে সতর্ক থাকার আহ্বান জানিয়ে প্রধানমন্ত্রী বলেন, নৌপথে দুর্ঘটনা এড়াতে জলযানগুলোর লাইসেন্স থাকতে হবে এবং সবাইকে নৌপথের আইন-কানুন মেনে চলতে হবে।

সংবাদের ধরন : শিরোনাম নিউজ : নিউজ ডেস্ক