বিস্তারিত

বিশ্ব ইজতেমার যাতায়াতের ক্ষেত্রে সড়ক নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে

ছবি : সংগ্রহকৃত

শুক্রবার থেকে বিশ্ব ইজতেমার প্রথম ধাপ শুরু হচ্ছে। মুসল্লিদের যাতায়াত নির্বিঘ্ন করতে যানবাহন নিয়ন্ত্রণে বিশেষ পদক্ষেপ নিয়েছে ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশ (ডিএমপি)। একই সঙ্গে বিশ্ব ইজতেমার আশপাশের সড়ক দিয়ে যাতায়াতের ক্ষেত্রে নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে।

গাড়ি পার্কিং করা যাবে না:-

রেইনবো ক্রসিং হতে আব্দুল্লাহপুর হয়ে ধউর ব্রিজ পর্যন্ত এবং রামপুরা ব্রিজ হতে প্রগতি সরণী পর্যন্ত রাস্তা ও রাস্তার পার্শ্বে কোন যানবাহন পার্কিং করা যাবে না।

যেসব স্থানে পার্কিং করা যাবে:-

চট্টগ্রাম বিভাগ: পার্কিং স্থান- গাউসুল আজম এভিনিউ (১৩ নং সেক্টর রোডের পূর্বপ্রান্ত হতে পশ্চিমপ্রান্ত হয়ে গরীবে নেওয়াজ রোড)।

ঢাকা বিভাগ: পার্কিং স্থান- সোনারগাঁও জনপথ চৌরাস্তা হতে দিয়াবাড়ি খালপাড় পর্যন্ত।

সিলেট বিভাগ: পার্কিং স্থান- উত্তরাস্থ ১৫ নং সেক্টর খালপাড় হতে দিয়াবাড়ি গোলচত্ত্বর পর্যন্ত।

খুলনা বিভাগ: পার্কিং স্থান- উত্তরাস্থ ১৭ ও ১৮ নং সেক্টরের খালি জায়গা (প্রধান সড়কসহ)।

রংপুর, রাজশাহী ও ময়মনসিংহ বিভাগ: প্রত্যাশা হাউজিং।

বরিশাল বিভাগ: ধউর ব্রিজ ক্রসিং সংলগ্ন বিআইডব্লিউটিএ ল্যান্ডিং স্টেশন।

ঢাকা মহানগর পার্কিং স্থান: উত্তরাস্থ শাহজালাল এভিনিউ, নিকুঞ্জ-১ এবং নিকুঞ্জ-২ এর আশপাশের খালি জায়গা।

ডাইভারশন সংক্রান্ত তথ্য:-

ডাইভারশন পয়েন্ট সমূহ (শুধুমাত্র আখেরি মোনাজাতের দিন ১২ জানুয়ারি এবং ১৯ জানুয়ারি ভোর ৪টা হতে)।

মহাখালী ক্রসিং, হোটেল রেডিসন গ্যাপ, প্রগতি সরণী, কুড়িল ফ্লাইওভারের নিচে লুপ-২,ধউর ব্রিজ ও বেড়িবাঁধ সংলগ্ন উত্তরা ১৮নং সেক্টরের প্রবেশ মুখ।

রোড ডাইভারশন:-

আশুলিয়া হতে আব্দুল্লাহপুরগামী যানবাহন আব্দুল্লাহপুর না এসে ধউর ব্রিজ ক্রসিং দিয়ে ডানে মোড় নিয়ে মিরপুর বেড়িবাঁধ দিয়ে চলাচল করবে। মহাখালী বাস টার্মিনাল হতে আব্দুল্লাহপুরগামী আন্ত:জেলা বাস, ট্রাক, কাভার্ডভ্যানসহ সকল প্রাকার যানবাহন মহাখালী ক্রসিং-এ বামে মোড় নিয়ে বিজয় সরণী-গাবতলী দিয়ে চলাচল করবে।

কাকলী ও মিরপুর হতে উত্তরাগামী বড় বাস, ট্রাক, কাভার্ডভ্যান হোটেল রেডিসন গ্যাপে ডাইভারশন করা হবে। এছাড়া এসব যানবাহনসমূহকে বিকল্প সড়ক ব্যবহারের জন্য বলা হয়েছে।

কাকলী, মিরপুর হতে উত্তরাগামী প্রাইভেটকার, মাইক্রোবাস, সিএনজিসমূহকে নিকুঞ্জ-১ গেটের সামনে ডাইভারশন করা হবে। এসব যানবাহনসমূহকে বিকল্প সড়ক ব্যবহারের জন্য বলা হয়েছে।

প্রগতি সরণী হতে আব্দুল্লাহপুরগামী যানবাহনসমূহ কুড়িল ফ্লাইওভারের নিচে লুপ-২ এ ডাইভারশন করা হবে।

আখেরি মোনাজাতের দিন অর্থাৎ ১২ জানুয়ারি ও ১৯ জানুয়ারি বিমান অপারেশনস ও বিমান ক্রু বহনকারী যানবাহন, ফায়ার সার্ভিসের গাড়ি, আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর গাড়ি ও এ্যাম্বুলেন্স বিমান বন্দর সড়ক ব্যবহার করে চলাচল করতে পারবে।

এসব যানবাহন ছাড়া সকল প্রকার যানবাহনকে বিমানবন্দর সড়ক পরিহার করে বিকল্প হিসেবে মহাখালী, বিজয় সরণী হয়ে মিরপুর-গাবতলী সড়ক ব্যবহার করার জন্য অনুরোধ করা হয়েছে।

বিশ্ব ইজতেমার আখেরি মোনাজাতের দিন অর্থাৎ ১২ ও ১৯ জানুয়ারি ভোর ৪টা হতে বিদেশগামী বা বিদেশ ফেরত যাত্রীদের নিকুঞ্জ-১ হতে বিমানবন্দরে আনা-নেয়ার জন্য ট্রাফিক উত্তর বিভাগের ব্যবস্থাপনায় ২টি মিনিবাস ও ২টি মাইক্রোবাস ফ্রি পরিবহন সেবার জন্য নিকুঞ্জ-১ আবাসিক এলাকার গেইটে মোতায়েন থাকবে।

সংবাদের ধরন : র্শীষ সংবাদ নিউজ : নিউজ ডেস্ক