বিস্তারিত

পাবনায় আ’লীগের বিদ্রোহী প্রার্থীর সমর্থকদের মধ্যে সংঘর্ষে নিহত ১

bd news ছবি : সংগ্রহকৃত

পাবনার বেড়া উপজেলার ঢালারচর ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনকে সামনে রেখে আওয়ামী লীগের দলীয় প্রার্থী ও বিদ্রোহী প্রার্থীর সমর্থকদের মধ্যে সংঘর্ষ ও গোলাগুলির ঘটনা ঘটেছে। সংঘর্ষে গুলিতে একজন নিহত ও অন্তত ৭ জন গুলিবিদ্ধ হয়েছেন। শনিবার দিবাগত রাত সোয়া ১১টার দিকে ঢালারচর ইউনিয়নের মিরপুর গ্রামে এ সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে।

জানা যায়, সংঘর্ষে আহত ও গুলিবিদ্ধ আমির হামজা (২২), সাহেব আলী মৃধা (৭০), আলম মন্ডল(২৮), মালেক ব্যাপারি (৩৬), রশিদ ব্যাপরি (৪২), খলিল মন্ডল (৪০), সোহরাব প্রামাণিক (২২)। তাদের বেড়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপে¬ক্সে ভর্তি করা হয়েছে। এরা ঢালারচর ইউনিয়নের রামনারায়নপুর গ্রামের বাসিন্দা। এ ঘটনার পর থেকে এলাকায় চরম উত্তেজনা বিরাজ করছে। স্থানীয় বাসিন্দাদের মধ্যে আতঙ্ক বিরাজ করছে।
পাবনার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (বিশেষ শাখা) মো: সিদ্দিকুর রহমান একজন নিহতের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। তিনি জানান, নিহত ব্যক্তির নাম গহের মন্ডল (৩০)। তিনি ঢালারচর ইউনিয়নের খয়েরবাগান গ্রামের পাশান মন্ডলের ছেলে। নিহত গহের আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী নাসির উদ্দিন ব্যাপারী গ্রুপের সমর্থক। সংঘর্ষে কয়েকজন গুলিবিদ্ধ সহ আহত হয়েছে বলেও জানান অতিরিক্ত পুলিশ সুপার।
এলাকাবাসী ও পুলিশ সুত্র জানায়, আমিনপুর থানার ঢালারচর ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনকে সামনে রেখে গত বেশকিছুদিন ধরে আওয়ামী লীগের মনোনীত প্রার্থী কোরবান আলী সরদার গ্রুপ ও দলের বিদ্রোহী প্রার্থী নাসির উদ্দিন ব্যাপারী গ্রুপের মধ্যে বিরোধ ও উত্তেজনা চলছিল। এর আগে দুই গ্রুপের মধ্যে একাধিকবার হামলা, ভাঙচুর ও সংঘর্ষের ঘটনাও ঘটেছে। এরই জের ধরে শনিবার দিবাগত রাতে মিরপুর গ্রামে দুই পক্ষের সমর্থকরা ভোট চাইতে গেলে কথা কাটাকাটি থেকে সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে। এ সময় কয়েক রাউন্ড গোলাগুলির ঘটনাও ঘটে। এতে গুলিবিদ্ধ হয়ে নাসির উদ্দিন ব্যাপারী গ্রুপের সমর্থক গহের মন্ডল ঘটনাস্থলেই মারা যায়। আহত হয় অন্তত ৫ জন। তাদের বেড়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে।
আমিনপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা এমএম তাজুল হুদা জানান, আমিনপুর থানার ঢালারচর ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনকে সামনে রেখে গত বেশকিছুদিন ধরে আওয়ামী লীগের মনোনীত প্রার্থী কোরবান আলী সরদার গ্রুপ ও দলের বিদ্রোহী প্রার্থী নাসির উদ্দিন ব্যাপারী গ্রুপের মধ্যে বিরোধ ও উত্তেজনা চলছিল। কোরবান আলী সরদার আ’লীগ থেকে মনোনয়ন পাওয়ায় ক্ষুদ্ধ হন নাসির উদ্দিন ব্যাপারী। এর আগে গত ৩ মার্চ বৃহস্পতিবার রাতে ইউনিয়নের সিদ্দিকমোড় নামক স্থানে আ’লীগ প্রার্থী কোরবান সর্দার এর নির্বাচনী অফিসে নাসির ব্যাপারীরর লোকজন গুলিবর্ষনসহ ব্যাপক ভাঙচুর চালায়। সে সময় তাদের হামলায় কোরবান সর্দারের ৭ কর্মী-সমর্থক আহত হয়। সে সময় থেকেই এলাকায় উত্তেজনা বিরাজ করছিল। এরই জের ধওে দুই গ্রুপের মধ্যে সংঘর্ষ ও গোলাগুলিতে হতাহতের ঘটনা ঘটেছে বলে তিনি জানান।
এ বিষয়ে সহকারি পুলিশ সুপার (বেড়া সার্কেল) জাকির হোসাইন একজন নিহতের বিষয়টি স্বীকার করে বলেন, সংঘর্ষের খবর পেয়ে আমি রাতেই ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছি। তবে কি নিয়ে, কিভাবে সংঘর্ষের সুত্রপাত সে বিষয়টি তদন্তে জানা যাবে।

সংবাদের ধরন : বাংলাদেশ নিউজ : স্টাফ রিপোর্টার