বিস্তারিত

তৃতীয়বারের মতো মুখ্যমন্ত্রী হতে চলেছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়

ছবি : সংগ্রহকৃত

ভারতের পশ্চিমবঙ্গ, আসাম, তামিনাড়ু, কেরালা রাজ্য এবং কেন্দ্রশাসিত পদুচেরির বিধানসভা নির্বাচনের ফল ঘোষণা চলছে। পশ্চিমবঙ্গে বড় জয়ের পথে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের দল তৃণমূল কংগ্রেস।

পশ্চিমবঙ্গে ২৯২টি আসনের ভোটে তৃণমূল এগিয়ে দুইশর বেশি আসনে এবং বিজেপি সত্তরটির বেশি আসনে। আর বামদলীয় জোট এগিয়ে তিনটি আসনে। এর ফলে টানা তৃতীয়বারের মতো মুখ্যমন্ত্রী হতে চলেছেন মমতা বন্দোপাধ্যায়।

তবে নানা নাটকীয়তার পর নন্দীগ্রাম আসনে মমতা বিজেপির নেতা শুভেন্দু অধিকারীর চেয়ে পিছিয়ে রয়েছেন। হেভিওয়েট প্রার্থীদের মধ্যে চুচুড়ায় বিজেপির প্রার্থী লকেট চ্যাটার্জি হেরে গেছেন। তবে বারাকপুরের ভোটে চলচ্চিত্র পরিচালক ও বিজেপি প্রার্থী রাজ চক্রবর্তী রয়েছেন স্বস্তিতে। এই ভোটে প্রবীণ নেতাদের মধ্যে বিজেপির মুকুল রায় ও তৃণমূলের জ্যোতিপ্রিয় মল্লিক এগিয়ে রয়েছেন।

পশ্চিমবঙ্গ বিধানসভা নির্বাচনে এবার আট দফায় ভোট হয়েছে। রোববার স্থানীয় সময় সকাল ৮টা থেকে শুরু হয় ভোট গণনা। জানা গেছে, গণনাকৃত ভোটের ৪৮ দশমিক তিন শতাংশ পেয়েছে তৃণমূল। অতীতে আর কোনো নির্বাচনেই এত ভোট পাওয়ার রেকর্ড নেই দলটির।

২০১৬ সালের বিধানসভা নির্বাচনে ২৯৪ আসনের মধ্যে ২১১টিতে জিতেছিল তৃণমূল। সেবারও দলটির পক্ষে পড়েছিল প্রদত্ত ভোটের ৪৪ দশমিক তিন শতাংশ ভোট। তার আগে ২০১১ সালের নির্বাচনে তৃণমূল কংগ্রেস পেয়েছিল ৩৮ দশমিক নয় শতাংশ ভোট। ২০১৪ ও ২০১৯ সালের লোকসভা ভোটে দলটি পেয়েছিল যথাক্রমে প্রদত্ত ভোটের ৩৯ দশমিক শূন্য পাঁচ শতাংশ ও ৪৩ দশমিক তিন শতাংশ ভোট।

অন্যদিকে, আসামের বিধানসভার ১২৬টি আসনের ভোটের ফলাফলে ৭৮ আসনে এগিয়ে রয়েছে বিজেপি। আর কংগ্রেস এগিয়ে ৪৭টি আসনে। এ ছাড়া, তামিলনাড়ুতে কংগ্রেস নেতৃত্বধীন জোট ডিএমকে, কেরালায় লেফট ডেমোক্রাটিক ফ্রন্ট এবং পদুচেরিতে এআর কংগ্রেস রয়েছে জয়ের পথে।

বিধানসভা নির্বাচনে জয়ী হওয়ায় মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে অভিনন্দন জানিয়েছেন ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। রোববার (২ মে) সন্ধ্যায় এক টুইট বার্তায় মোদি এ অভিনন্দন জানান। নির্বাচনে মমতার তৃণমূলের প্রধান প্রতিদ্বন্দ্বী মোদির দল বিজেপি।

টুইটে মোদি বলেন, ‘মমতা দিদিকে পশ্চিমবঙ্গে তার দল তৃণমূল কংগ্রেসের জয়ের জন্য অভিনন্দন। কেন্দ্র পশ্চিমবঙ্গ সরকারকে জনগণের প্রত্যাশা ও কোভিড-১৯ মহামারি থেকে বের হয়ে আসতে সব ধরনের সম্ভাব্য সহযোগিতা দিয়ে যাবে।

মোদি পৃথক টুইটে পশ্চিমবঙ্গে নিজের দলের নেতা কর্মীদেরও ধন্যবাদ দেন। তিনি বলেন, আগে এই রাজ্যে বিজেপির উপস্থিতি নগণ্য ছিল। সেখানে এবার গুরুত্বপূর্ণভাবে বেড়েছে।

নরেন্দ্র মোদির অফিশিয়াল টুইটার অ্যাকাউন্ট থেকে কেরালার সিপিআই (এম) নেতা পিনারাই বিজয়ন ও তামিলনাড়ুর এম কে স্টালিনকেও অভিনন্দন জানানো হয়েছে। এই দুই রাজ্যে এই দুই নেতার দল জয়ের পথে রয়েছে।

এদিকে নির্বাচনের ফল ঘোষণা শুরুর পর থেকেই মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে অভিনন্দন জানাতে শুরু করেন বিভিন্ন রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী ও রাজনৈতিক দলের নেতারা।

সংবাদের ধরন : আন্তর্জাতিক নিউজ : নিউজ ডেস্ক