বিস্তারিত

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রীকে ধর্ষণ

ছবি : সংগ্রহকৃত

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের (ঢাবি) দ্বিতীয় বর্ষের এক ছাত্রীকে ধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে। রোববার (৫ জানুয়ারি) বিকেল ৫টার দিকে রাজধানীর কুর্মিটোলায় এ ঘটনা ঘটে। পরে রোববার রাতে ওই ছাত্রীকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেয়া হয়। তাঁকে হাসপাতালের ওয়ানস্টপ ক্রাইসিস সেন্টারে ভর্তি করা হয়েছে।

বিকেল সাড়ে ৫টার দিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের ‘ক্ষণিকা’ বাসে রাজধানীর শেওড়ার উদ্দেশে রওনা দেন ওই শিক্ষার্থী। সন্ধ্যা ৭টার দিকে কুর্মিটোলা বাস স্টপেজে নামার পর অজ্ঞাত কয়েকজন ব্যক্তি তার মুখ চেপে ধরে নির্জন জায়গায় নিয়ে যায়। সেখানে তাকে মারধর এবং অজ্ঞান করে ধর্ষণ করা হয়। রাত ১০টার দিকে তিনি জ্ঞান ফিরে পান। এরপর সিএনজিচালিত অটোরিকশায় গন্তব্যে যান। সেখান থেকে বন্ধুরা তাকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালে নিয়ে আসেন।

এ ঘটনার পর ভুক্তভোগী ছাত্রীকে দেখতে ঢাবি প্রক্টর অধ্যাপক গোলাম রাব্বানী, শিক্ষক সাদেকা হালিমসহ তার সহপাঠীরা ঢামেক হাসপাতালে যান। প্রক্টর অধ্যাপক গোলাম রাব্বানী বলেন, এ ঘটনায় খুবই মর্মাহত হয়েছি। এটার লিগ্যাল ব্যবস্থা নেয়া হবে।

কুর্মিটোলায় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ওই ছাত্রীকে ধর্ষণের আলামত পাওয়া গেছে বলে জানিয়েছেন ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের ফরেনসিক বিভাগের প্রধান ডা. সোহেল মাহমুদ। আজ সোমবার (৬ জানুয়ারি) দুপুরে নমুনা সংগ্রহের পর তিনি একথা জানান।

সংবাদের ধরন : র্শীষ সংবাদ নিউজ : নিউজ ডেস্ক