বিস্তারিত

গ্রামীনফোনে বিজ্ঞাপনচিত্রের শিশুশিল্পী দিঘী

ছবি : সংগ্রহকৃত

গ্রামীনফোনের বিজ্ঞাপনচিত্রে অভিনয় করে রাতারাতি তারকা বনে যায় শিশুশিল্পী দিঘী। চলচ্চিত্রে শিশুশিল্পী হিসেবে অভিনয় করে প্রচুর অভিনন্দন কুড়িয়েছে সে। পর পর তিনবার জাতীয় পুরস্কারও পেয়েছে দীঘি। পুরো নাম প্রার্থনা ফারদিন দীঘি।

দীঘি শিশুশিল্পী হিসেবে চলচ্চিত্রে অভিনয় করে ‘তারকাখ্যাতি’ পেয়েছেন। কাবুলিওয়ালা, চাচ্চু, দাদীমা, ১ টাকার বউ, অবুঝ শিশু এসব চলচ্চিত্রে দীঘির উপস্থিতি ছিল সব শ্রেণীর দর্শকের কাছে প্রশংসনীয়।

দীর্ঘ কয়েক বছর চলচ্চিত্র থেকে দূরে থাকলেও দীঘির জনপ্রিয়তা একটুও কমেনি। দীঘি চলচ্চিত্র পরিবারের সন্তান। সাংস্কৃতিক অঙ্গনে তার বেড়ে ওঠা। বাবা সুব্রত বড়ুয়া ও মা প্রয়াত চলচ্চিত্র অভিনেত্রী দোয়েলের একমাত্র মেয়ে দীঘি।

২০১১ সালে দিঘীর মা দোয়েল মারা যান। মায়ের স্বপ্ন ছিল দিঘি ডাক্তার হবে, সম্প্রতি সেই স্বপ্ন পূরনের লক্ষ্যে পড়াশোনায় মনযোগী হওয়ার জন্য চলচ্চিত্রে অভিনয় স্থগিত রাখার সিদ্ধান্ত জানিয়েছেন। বর্তমানে দিঘী স্কলাস্টীকা স্কুলে লেখাপড়া করছেন। এসএসসি ২০১৯ পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করে দিঘী জিপিএ ৩.৬১ পেয়েছেন।

কাজী হায়াৎ পরিচালিত ‘কাবুলিওয়ালা’ তার অভিনীত প্রথম চলচ্চিত্র। এই ছবিতে নায়ক মান্না ছিলেন দীঘির প্রিয় ‘কাবুলিওয়ালা’। প্রথম চলচ্চিত্রে অভিনয় করেই ২০০৬ সালে ‘শ্রেষ্ঠ শিশুশিল্পী’ হিসেবে জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার অর্জন করে সে। এছাড়া দাদীমা, চাচ্চু, বাবা আমার বাবা, ১ টাকার বউ ও অবুঝ শিশুর মতো চলচ্চিত্রে অভিনয় করে দর্শক মন জয় করে দীঘি। বর্তমানে অভিনয় থেকে কিছুটা দূরে আছেন।

সংবাদের ধরন : বিনোদন নিউজ : নিউজ ডেস্ক