বিস্তারিত

সাজের বৈচিত্র্য যোগ করা

ছবি : সংগ্রহকৃত

সাজের বৈচিত্র্য যোগ করা। দুই ডানার কাজলরেখা: যে কোনো ভালো মানের জেল আই লাইনার শক্ত সূচালো একটা তুলি দিয়ে চোখের পাপড়ির ধার ঘেঁষে লাগাতে হবে। পাপড়ির কিনারা ঘেঁষে কাজলের রেখা চোখ থেকে একটু বাইরের দিকে নিয়ে যেতে হবে। তবে উপর এবং নিচের রেখা একে অপরের সঙ্গে মিলবে না। ঠিকঠাক মতো দিতে পারলে রেখা দুইটি একে অপরের সমান্তরাল হবে।তীক্ষ্ণ প্রান্তের কাজলরেখা: যারা জ্যামিতিক নকশা সমঝদার এই কাজলরেখা তাদের জন্য একদম উপযুক্ত। এক্ষেত্রে নরম চ্যাপ্টা মুখের একটা পেন লাইনার প্রয়োজন হবে। তীক্ষ্ণ প্রান্তের কাজলরেখা টানতে প্রথমে উপরের পাপড়ির পাড় ঘেঁষে রেখা টেনে চোখের প্রান্তে এসে থেমে যেতে হবে। এরপর নিচের পাপড়ির প্রান্ত ঘেঁষে কাজল রেখা টেনে চোখের সীমানার বাইরে উপর দিকে টেনে নিতে হবে। উপরের রেখা সামান্য আগিয়ে নিচের রেখার সঙ্গে মিলিয়ে দিলেই হয়ে যাবে তীক্ষ্ণ প্রান্তের কাজলরেখা।

চৌকো কাজলরেখা: একটি শক্ত ব্রাশ ব্যবহার করে, উপরের কিনারা রেখা বরাবর একটি পুরু রেখা আঁকাতে হবে। রেখা চোখের সামনের কিনারার সামান্য বাইরে থেকে শুরু হবে। তবে লক্ষ রাখতে হবে, রেখা যেন চোখ পার করে বাইরে না যায়। চোখের সামনের চারকোণা জায়গাটুকু কালো আই লাইনার দিয়ে ভরাট করতে হবে। যদি একটু সাহসী ব্যতিক্রম সাজ দিতে আগ্রহী হলে কালো না দিয়ে অন্য কোনো রংয়ের লাইনার ব্যবহার করা যেতে পরে। এই ক্ষেত্রেও জেল লাইনার ব্যবহারে ভালো ফল পাওয়া যাবে।

সংবাদের ধরন : জীবন যাপন নিউজ : স্টাফ রিপোর্টার