বিস্তারিত

উত্তরার রোডে এনা ও বুশরা পরিবহনের বাসে আগুন

ছবি : সংগ্রহকৃত

রোববার বাস চাপায় দুই শিক্ষার্থী নিহতের ঘটনায় উত্তরার জসীম উদ্দীন রোডে এনা ও বুশরা পরিবহনের দুটি বাসে আগুন দিয়েছে বিক্ষুব্ধ শিক্ষার্থীরা।

একইভাবে উত্তরা হাউস বিল্ডিংয়ে বিজিএমইএ বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা পাঁচটি বাস এবং একটি পিকআপ ভাঙচুর করে। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে শিক্ষার্থীদের ওপর ব্যাপক লাঠিচার্জ করে পুলিশ।

মঙ্গলবার বিকাল ৪টায় বিমানবন্দর সড়কে বাসে আগুন ও ভাঙচুরের এ ঘটনায় যানচলাচল একেবারে বন্ধ হয়ে যায়। এর আগে দুপুর ১২টা থেকে নটরডেম কলেজের শিক্ষার্থীরা শাপলা চত্বরে অবস্থান নেয়। প্রায় কয়েকশ শিক্ষার্থীর সড়ক অবরোধের কারণে শাপলা চত্বরে যানচলাচল বন্ধ হয়ে যায়।

বিক্ষোভ স্লোগানের এক পর্যায়ে শিক্ষার্থীরা একটি বাস ভাঙচুর করে। দুপুর পৌনে ১২টার দিকে সাইন্সল্যাব মোড়ে অবস্থান নিয়ে সড়ক অবরোধ করে সিটি কলেজ এবং ধানমন্ডি আইডিয়ালসহ বেশ কয়েকটি স্কুল-কলেজের শিক্ষার্থীরা। এতে মিরপুর রোড, নীলক্ষেত এবং শাহবাগ থেকে সাইন্সল্যাব এলাকার যানচলাচল বন্ধ হয়ে যায়। শিক্ষার্থীদের অবরোধ ভেদ করে একটি বাস সাইন্সল্যাব মোড়ের দিকে যাওয়ার চেষ্টা করলে বাসটিতে আগুন ধরিয়ে দেয়া হয়। এ সময় পুলিশের সঙ্গে শিক্ষার্থীদের ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়ার ঘটনা ঘটে।
এছাড়া সকাল থেকে রাজধানীর ফার্মগেট ওভারব্রিজের নিচে শিক্ষার্থীদের অবস্থানের কারণে প্রায় দুই ঘণ্টা কারওয়ান বাজার থেকে বিজয় সরণির দুই পাশে যান চলাচল বন্ধ ছিল।

সংবাদের ধরন : র্শীষ সংবাদ নিউজ : নিউজ ডেস্ক