বিস্তারিত

ইতালি ফেরতদের বিক্ষোভ নিয়ন্ত্রণে সেনা মোতায়েন

ছবি : সংগ্রহকৃত

ইতালির রোম থেকে আগতরা হজ ক্যাম্পে বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি করে কোয়ারেন্টাইনে থাকতে অস্বীকৃতি জানায়। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে পুলিশের পাশাপাশি সেখানে সেনা সদস্যও মোতায়েন করা হয়।

পরিবার, স্বজন সর্বোপরি দেশের মানুষের স্বার্থে বিদেশ ফেরতদের কোয়ারেন্টাইনে থাকার অনুরোধ জানানো হলেও সদ্য ইতালি ফেরত ১৪২ জন সরকারি নির্দেশনা মেনে চলতে অস্বীকৃতি জানায়। পরীক্ষা নিরীক্ষার জন্য তাদের আশকোনা হজ ক্যাম্পে নেয়া হলে সেখানে বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি করে। এক পর্যায়ে তাদের নিয়ন্ত্রণে পুলিশের পাশাপাশি মোতায়েন করা হয় সেনাসদস্য।

দুবাই হয়ে এমিরেটস এয়ারলাইন্সের ফ্লাইটটিতে থাকা ১৪২ জনের শরীরে প্রাথমিকভাবে করোনার কোনো লক্ষণ পাওয়া যায়নি। তবে পরীক্ষা নিরীক্ষার পর তাদের ব্যাপারে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত বলে জানিয়েছে আইইডিসিআর।

আইডিসিআর পরিচালক মীরজাদী সেব্রিনা ফ্লোরা বলেন, হোম কোয়ারেন্টাইন এবং প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টাইন পাশাপাশিই হবে। যদি এদেরকে আমরা তথ্য সংগ্রহের পর দেখি যে তারা বাড়িতে গিয়ে সেল্ফ কোয়ারেন্টাইন করতে পারবে, তাহলে তারা বাড়িতে যাবে। এদের মধ্যে কারো সেল্ফ কোয়ারেন্টাইনে যদি সমস্যা হয় তাহলে তাদের প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টাইন করা হবে।

এদিকে, স্বাস্থ্য অধিদপ্তরে জরুরি সংবাদ সম্মেলনে স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালিক জানান, ইতালি ফেরত প্রত্যেককেই সরকারি তত্ত্বাবধানে হোম কোয়ারেন্টাইনে থাকা বাধ্যতামূলক।

মন্ত্রী বলেন, পরীক্ষা নিরীক্ষা করে দেখে তাদের আমরা হোম কোয়ারেন্টাইনে পাঠিয়ে দেবো। এটিই আমাদের সিদ্ধান্ত। আমাদের তো রাখতেও কষ্ট হয়ে যাচ্ছে। যারা বাইরে থেকে আসছে তারা তো মারমুখী, তারা তো থাকবে না। যে ব্যবস্থা দুইমাস যাবৎ আমরা নিয়েছি সেটা তো আর কোনো দেশ নেয়নি।

করোনা ছোবলে টালমাটাল ইতালিতে প্রতিদিনই মৃত্যুর মিছিল দীর্ঘ হচ্ছে। সবশেষ শুক্রবার একদিনেই মৃতের সংখ্যা আড়াইশ ছাড়িয়েছে।

সংবাদের ধরন : বাংলাদেশ নিউজ : নিউজ ডেস্ক