বিস্তারিত

আলিয়া ভাটের করোনা, বিশাল টাকা লোকসানে পরিচালক

ছবি : সংগ্রহকৃত

“জমিন পে বৈঠি আচ্ছি লগ রহি হ্যায় তু, আদত ডাল লে”! মুম্বইয়ের কুখ্যাত নিষিদ্ধপল্লী কামাতিপুরার যৌনকর্মী গঙ্গা হরজীবনদাস ছবির পর্দায় হয়ে উঠেছেন গাঙ্গুবাঈ কাথিয়াওয়াড়ি। সঞ্জয় লীলা বনশালি পরিচালিত এবং প্রযোজিত এই ছবিতে নামভূমিকায় অভিনয় করা নায়িকা আলিয়া ভাটের এই সংলাপ ছবির ট্রেলারের মতোই দারুণ জনপ্রিয়, লোকের গায়ে কাঁটা দিচ্ছে এই বিশেষ দৃশ্যে মুখে বিড়ি নিয়ে নায়িকার ডায়ালগ বলার ধরন দেখে।

কিন্তু ভাগ্যের পরিহাসে আপাতত মাটিতে বসে পড়েছেন বনশালি, মাথায় হাত পড়েছে তাঁর, গায়ে কাঁটাও দিচ্ছে ঘন ঘন, তেমনটাই বলছে সূত্রের খবর! কারণ আর কিছুই নয়, আলিয়ার করোনা রিপোর্ট পজিটিভ আসা, নায়িকা এখন আইসোলেশনে। যার ফলে খুব স্বাভাবিক ভাবেই বন্ধ হয়ে গিয়েছে ছবির কাজ। আর তাতে রীতিমতো আর্থিক ভরাডুবির অবস্থা বনশালি প্রোডাকশন্সের।

আলিয়ার আগে করোনায় আক্রান্ত হয়েছিলেন পরিচালক নিজে, তখন এক দফা ছবির কাজ বন্ধ রাখতে হয়েছে, জলে গিয়েছে বহু টাকা। সেই ধাক্কা সামলে উঠে আবার যখন কাজে হাত দিয়েছিলেন বনশালি, স্রেফ একদিনের শ্যুটিং বাকি ছিল! কিন্তু আপাতত আলিয়া করোনায় আক্রান্ত হওয়ায় কাজ পিছিয়ে গিয়েছে। আবার নতুন করে সেট ফেলতে হবে বনশালিকে, ১৬০ জন সদস্য নিয়ে নতুন করে হাত দিতে হবে কাজে। বার বার এই ভাবে টাকা খরচ হচ্ছে দেখেই মুষড়ে পড়েছেন বনশালি।

তবে ঘনিষ্ঠ মহলে না কি এই নিয়ে ইয়ার্কিও করেছেন পরিচালক! বলেছেন ব্ল্যাক ছবিটা করার সময়ে সেট আগুনে পুড়ে গিয়েছিল, তাতেও প্রচুর আর্থিক লোকসান হয়েছিল। কিন্তু শেষ পর্যন্ত ছবিটা হিট হয়, সব বিনিয়োগ করা পয়সা সুদে-আসলে উঠে আসে। বনশালির আশা, এবারেও তাই হবে, ছবি এমন হিট করবে যে পয়সা রাখার জায়গা হবে না।

গাঙ্গুবাঈ কাথিয়াওয়াড়ি ছবিতে দীর্ঘ ২২ বছর পর বনশালির সঙ্গে কাজ করছেন অজয় দেবগন, ছবির একটি গুরুত্বপূর্ণ চরিত্রে দেখা যাবে তাঁকে। যদি আর কোনও বিঘ্ন না ঘটে, তবে প্রতিশ্রুতি মতো চলতি বছরেই ৩১ জুলাই প্রেক্ষাগৃহে ছবিটা মুক্তি পাবে বলে আশা পরিচালকের।

সংবাদের ধরন : বিনোদন নিউজ : নিউজ ডেস্ক