বিস্তারিত

সোনার চেয়েও সাপের বিষের দাম বেশি

ছবি : সংগ্রহকৃত

সাধারণত মাদকাসক্তি যাদের চরমে, তাদের মাদকে এখন মেশানো হচ্ছে সাপের বিষ। তাই চাহিদা বাড়ছে সাপের বিষের। অবিশ্বাস্য মনে হলেও কথাটা সত্যি যে, সোনার চেয়েও সাপের বিষের দাম বেশি এখন বাজারে।

বিশ্বের অন্যান্য দেশের মতো ভারতেও মাদকাসক্ত লোকের অভাব নেই। তাঁদের কড়া নেশা দরকার। তাই তাঁদের মাদকে এখন মেশানো হচ্ছে সাপের বিষ। সাপের বিষের ব্যবসা অসম্ভব লাভজনক। কোটি কোটি টাকার সাপের বিষ পাচার হচ্ছে দেশের বাইরেও। এ মুহূর্তে এক লিটার সাপের বিষের বাজার দাম প্রায় চার কোটি টাকা। ভারতে বিষ নিষ্কাশনের জন্য ধরা হয় প্রধানত চার প্রজাতির সাপ গোখরো, রাসেল ভাইপার, পিট ভাইপার এবং শাখামুটে।

কীভাবে মাদকে মেশানো হয় সাপের বিষ? সাপের বিষ নিষ্কাশনের পর প্রথমে তা রাখা হয় খুব কম তাপমাত্রার আধারে ৷ কিছুদিন পর তরল বিষ শুকিয়ে দানা বেঁধে গেলে তা গুঁড়ো করা হয়। তারপর তা মেশানো হয় মদ বা অন্যসব মাদকে। সাধারণত ১০০ লিটার মদে ১০ গ্রাম সাপের বিষের গুঁড়ো মেশানো হয়।

সংবাদের ধরন : বিচিত্র খবর নিউজ : নিউজ ডেস্ক