বিস্তারিত

সবকিছু স্বাভাবিক হলে একটা রেস্তোরাঁ খুলবো

ছবি : সংগ্রহকৃত

বিশ্বজুড়ে কঠিন পরিস্থিতিতে ঘরবন্দি এই জীবনের মধ্যেও অনেকেই তাই পজিটিভিটি খুঁজে নিচ্ছেন। তাঁদের মধ্যে একজন বাংলা ছবির জনপ্রিয় অভিনেত্রী কৌশানি মুখোপাধ্যায়। কৌশানি তাঁর লকডাউন ডায়েরির কথা খোলসা করলেন।

কৌশানির কথায়, আমি রান্না করতে ভীষণই ভালোবাসি। আমি ঠিক করেছি এই সময় আমি নানান ধরনের ফ্যান্সি রান্না করার চেষ্টা করবো, যেমন বেকিং। আমি এতদিন ভয়ের চোটে বেকিং-এর চেষ্টা করিনি কখনও। তবে এই লকডাউনে আমি অনেক নতুন রান্না শিখেছি। অনেকেই আমায় পরামর্শ দিয়েছেন রেস্তোরাঁ খোলার। আমিও ভেবেছি সবকিছু স্বাভাবিক হয়ে গেলে একটা রেস্তোরাঁ খুলবো। বেশকিছু রান্নার ভিডিয়ো আমি সোশ্যাল মিডিয়াতেও দিয়েছি।

এই তো সেদিন ফিরনি বানিয়েছিলাম, সবার বেশ ভালো লেগেছে। মটন রোগান জোশ, শাহি পনির, চিকেন নবাব ডাল, পোলাও, আরও কত কিছু বানিয়েছি। মায়ের সঙ্গে মিলে বিরিয়ানি করেছি, এমনকি বাড়িতে ফুচকাও তৈরি করেছি, আর কত বলবো…।

কৌশানির কথায়, ”তবে হ্যাঁ এই সময় খাওয়াটা যেমন গুরুত্বপূর্ণ, তেমনই সুস্থ থাকাটাও দরকার। এই মহূর্তে সপ্তাহে ৩-৪ দিন ট্রেনারের কাছে অনলাইন যোগা ক্লাস করছি। বাড়ির টেরেসে গিয়ে কার্ডিও করছি।

কৌশানি আরও জানান, ”রান্নাবান্না ছাড়াও যাঁদের সঙ্গে এতদিন ব্যস্ততার মধ্যে হয়ত কথা বলে উঠতে পারতাম না ফোনো এমন অনেক আত্মীয়র সঙ্গেই এখন কথা হচ্ছে।

এই সব কিছু ছাড়া এখন গার্ডেনিং করতেও বেশ ভালো লাগছে। আমার বাড়িতে বেগুন, লঙ্কা সহ বেশকিছু সবজির গাছ মা বসিয়েছেন। এখন আমিই সেগুলোর দেখাশোনা করছি। মা-বাবার সঙ্গে বেশ ভালো সময় কাটছে। আর, আমরা বন্ধুরা সবাই যেহেতু রাতে দেরিতে ঘুমোতে যাই, তাই বন্ধুদের সঙ্গে ভিডিয়ো কলে রাতেই কথা হয়, আড্ডা হয়। বনির সঙ্গেও ভিডিয়ো কলে কথা হচ্ছে। রাত ১২টার পর (যখন সকলের খাওয়া হয়ে যায়) বন্ধুরা মিলে অনলাইনে লুডো খেলি। প্রচুর আড্ডা দি।

সংবাদের ধরন : বিনোদন নিউজ : নিউজ ডেস্ক