বিস্তারিত

শামীমাসহ জিহাদিদের বৃটেনে ফেরার অনুমতি দেয়ার আহ্বান

ছবি : সংগ্রহকৃত

মধ্যপ্রাচ্যের জেলে বন্দি আইএস বধু হিসেবে পরিচিত বহুল আলোচিত শামীমা বেগম ও অন্য জিহাদিদের বৃটেনে ফেরার অনুমতি দেয়ার আহ্বান জানিয়েছেন গোয়েন্দা সংস্থা এফবিআইয়ের সাবেক একজন এজেন্ট আলী সাউফান।

তিনি বলেছেন, সন্ত্রাসের বৃত্ত ভেঙ্গে দেয়ার জন্য তাদেরকে ফেরানো উচিত। এসব জঙ্গির চেয়ে বৃটেনের ভিতরে বেড়ে ওঠা জঙ্গিরা জাতীয় নিরাপত্তার জন্য বেশি বিপদজনক। এসব জঙ্গিকে দেশে ফিরিয়ে নিতে পশ্চিমা সরকারগুলোর কাছে আহ্বান জানিয়েছেন আলী সাউফান।

সাউফান সেন্টার বলেছে, সিরিয়া ও ইরাকের মতো জায়গায় যেসব জঙ্গিকে জেলে রাখা হয়েছে তাদেরকে যদি দেশে ফেরত নেয়া হয়, তাহলে জাতীয় নিরাপত্তার ক্ষেত্রে দেশের ভিতরে বেড়ে ওঠা জঙ্গিদের চেয়ে তারা কম ঝুঁকির হবে। সিরিয়া, ইরাক ও তুরস্কে বন্দি রয়েছে বৃটেনের কমপক্ষে ২০ জন জঙ্গি। আইসিস বধু শামীমা বেগম, শিশু ও নারীরা সহ বন্দি রয়েছে বন্দিশিবিরে। আল শাফি আল শেখ এবং আলেকজান্দা কোটে সহ কুর্দি শিবিরে বন্দি রয়েছে জঙ্গিরা।

এসব বন্দিশিবিরে বন্দি আছে সিরিয়ায় পশ্চিমা জিম্মিদের হত্যাকারী চার সদস্যের একটি সেলের জঙ্গিরা। তবে তারা সবাই বৃটেনে ফিরতে চায়। ওদিকে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের এক পরিসংখ্যান বলছে, বৃটেনের গোয়েন্দা সংস্থা এমআই ৫ এর ওয়াচলিস্টে আছে ৪৩ হাজার জঙ্গি। এরমধ্যে শতকরা প্রায় ৯০ ভাগই ইসলামপন্থি। গত সপ্তাহে বৃটেনের রিডিং এলাকায় ছুরিকাঘাতে তিনজনকে হত্যা করে লিবিয়ার ২৫ বছর বয়সী খাইরি সাদাল্লাহ। তাকে সন্ত্রাস বিষয়ক আইনের ৪১ ধারার অধীনে গ্রেপ্তার করার পর এ তথ্য পাওয়া গেছে।

সংবাদের ধরন : আন্তর্জাতিক নিউজ : নিউজ ডেস্ক