বিস্তারিত

লকডাউনের অবসরে রোজ স্ক্রিপ্ট পড়ছেন দীপিকা

ছবি : সংগ্রহকৃত

বলিউড সুন্দরী, নায়িকা দীপিকা পাড়ুকোন এই লকডাউনের অবসরেও একদিনও স্ক্রিপ্ট পড়তে ভোলেননি । এই অবসরকে নিজের আসন্ন ছবির চরিত্রের জন্য একেবারে তৈরি করে রাখছেন অভিনেত্রী।

নায়িকার ঘনিষ্ঠমহলের দাবি, ‘শকুন বাত্রার পরের ছবির নায়িকা দীপিকা প্রতিদিন কয়েক ঘণ্টা বসে স্ক্রিপ্ট পড়েন। কিন্তু অতিরিক্ত প্রস্তুতিও চান না তিনি। তবে চরিত্রে থেকে একেবারে দূরে সরে থাকতেও রাজি নন তিনি। লকডাউন উঠলেই এই ছবির শ্যুটিং শুরু করবেন নায়িকা।’

করোনাভাইরাসের জেরে লকডাউন গোটা দেশ। কোভিড ১৯-এর সংক্রমণ আটকাতে আপাতত বিশ্বের বেশিরভাগ দেশই লকডাউনের পথে হেঁটেছে। ভারতও ২ মাসের বেশি হয়ে গিয়েছে লকডাউন হয়ে হয়েছে। সে কারণে ফিল্মের কাজও পুরোপুরি বন্ধ। একেবারেই বাড়িবন্দি হয়ে রয়েছেন অভিনেতা-অভিনেত্রীরা। কিন্তু তার মধ্যেই এবার ওয়ার্ক ফ্রম হোম শুরু করলেন দীপিকা পাড়ুকোন। অনলাইনে স্ক্রিপ্টের ন্যারেশন শুনছেন নায়িকা।

ফিল্মমেকারদের সঙ্গে অনলাইনেই মিটিং সারছেন অভিনেত্রী। একেবারে প্রফেশনাল অভিনেত্রীর মতোই কাজ করছেন দীপিকা। ডিজিটাল দুনিয়ায় ভার্চুয়াল ভাবেই কাজ করছেন তিনি। আগামীতে যে সিনেমার কাজ তিনি ধরে ফেলেছিলেন সেগুলির নানা ধরনের ন্যারেশন শুনছেন তিনি। তার সঙ্গে নতুন পরিচালকদের কাছ থেকে স্ক্রিপ্টের ন্যারেশন শুনছেন।

যদি লকডাউন না থাকত, তবে এই সময় শ্রীলঙ্কায় থাকার কথা ছিল দীপিকার। শকুন বাত্রার পরের ছবির শ্যুটিং করতেন তিনি। তাঁরই সঙ্গে অভিনয় করার কথা ছিল সিদ্ধান্ত চতুর্বেদী ও অনন্যা পান্ডের।

তার পাশাপাশি নিজের পছন্দের ছবি-ওয়েব সিরিজও দেখতে ভুলছেন না দীপিকা পাড়ুকোন। এমন অবসর যখন পাওয়াই গিয়েছে, তখন একেও সামান্য সৃজনশীলতার কাজে লাগানোই বুদ্ধিমানের বলে মনে করছেন নায়িকা। সে কারণে নানা ধরনের, নানা স্বাদের ছবি-ওয়েব সিরিজ দেখছেন তিনি। সঙ্গে নিজেকেও আরও সমৃদ্ধ করছেন তিনি।

শুধু নিজেই দেখছেন তা নয়। কোন ধরনের ছবি দেখা উচিত, কোনগুলি রয়েছে তাঁর লিস্টে বা কোনগুলি দেখে ফেলেছেন সেগুলিও সোশ্যাল মিডিয়ায় শেয়ার করছেন তিনি। ফ্যানেদের জন্য ডিপি রেকমেন্ডস নাম দিয়ে ছবির তালিকা দিয়েছেন নায়িকা। এখানে রয়েছে জোজো র‍্যাবিট, ফ্যানটম থ্রেড, হার, ইনসাইড আউট, স্লিপলেস লাইটস ইন সিয়াটেল-এর মতো ছবি। ওয়েব সিরিজে রয়েছে পাতাল লোক।

সংবাদের ধরন : বিনোদন নিউজ : নিউজ ডেস্ক