বিস্তারিত

রাশেদের মৃত্যুতে দুই বাহিনীর মধ্যে চিড় ধরবে না

ছবি : সংগ্রহকৃত

পুলিশের গুলিতে মেজর (অব.) সিনহা মোহাম্মদ রাশেদের নিহত হওয়াকে ‘বিচ্ছিন্ন ঘটনা’ বলে উল্লেখ করেছেন সেনাবাহিনীর প্রধান জেনারেল আজিজ আহমেদ ও পুলিশের মহাপরিদর্শক ড. বেনজীর আহমেদ। তাঁরা বলেছেন, সেনাবাহিনী ও পুলিশের মধ্যে দূরত্ব নেই। আর এ ঘটনায় দুই বাহিনীর মধ্যে চিড় ধরবে না।

আজ বুধবার বিকেল ৩টার দিকে ঘটনাস্থল পরিদর্শনে এসে কক্সবাজার সৈকতে অবস্থিত সেনাবাহিনীর রেস্টহাউস জলতরঙ্গের সম্মেলন কক্ষে এক যৌথ সংবাদ সম্মেলনে দুই বাহিনীর শীর্ষ কর্মকর্তা এ অভিমত ব্যক্ত করেন। তাঁরা বলেন, কক্সবাজারে যে ঘটনা ঘটেছে, এ জন্য তাঁরা এখানে এসেছেন। এটাকে একটা বিচ্ছিন্ন ঘটনা হিসেবে দেখতে চান।

সেনাবাহিনীপ্রধান জেনারেল আজিজ আহমেদ বলেন, ‘সিনহা হত্যাকাণ্ড নিয়ে বাংলাদেশের দুটি গুরুত্বপূর্ণ রাষ্ট্রীয় প্রতিষ্ঠান বাংলাদেশ সেনাবাহিনী ও বাংলাদেশ পুলিশ বাহিনীর মধ্যে কোনো ভুল বোঝাবুঝির সৃষ্টি না হয়, সেদিকে খেয়াল রাখতে হবে। কারণ যে ঘটনাটি ঘটেছে, তাতে কোনো প্রতিষ্ঠান দায়ী হতে পারে না। তদন্ত কমিটি যাদের দোষী সাব্যস্ত করবে, অবশ্যই তাদের প্রায়শ্চিত্ত পেতে হবে। এ জন্য কোনো প্রতিষ্ঠান তাদের সহযোগিতা করবে না।

বাংলাদেশ পুলিশের মহাপরিদর্শক (আইজিপি) ড. বেনজীর আহমেদ বলেছেন, টেকনাফে যে ঘটনাটি ঘটেছে, সেটির কারণে দুই বাহিনীর মধ্যে সম্পর্কের কোনো ব্যত্যয় ঘটবে না। বরং আমাদের লক্ষ্য হবে, প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশে গঠিত যৌথ তদন্ত কমিটি হয়েছে, তাঁরা প্রভাবমুক্ত পরিবেশে তদন্ত করবেন। তাঁরা তদন্ত করে যে প্রতিবেদন দেবেন, সে অনুযায়ী পরবর্তী আইনি কার্যক্রম পরিচালিত হবে এবং সেটাই গ্রহণ করা হবে।

সংবাদ সম্মেলনে সেনাপ্রধান আরো বলেন, প্রধানমন্ত্রীর আশ্বাস এবং তদন্ত টিমের প্রতি আমাদের সম্পূর্ণ আস্থা আছে। সেনাবাহিনীর আস্থা আছে, পুলিশ বাহিনীর আস্থা আছে।

পুলিশের মহাপরিদর্শক বেনজীর আহমেদ বলেন, সেনাবাহিনীর সঙ্গে তাঁদের পারস্পরিক শ্রদ্ধা, বিশ্বাস ও আস্থার সম্পর্ক। মেজর (অব.) সিনহার মৃত্যুতে পারস্পরিক সম্পর্কের ক্ষেত্রে কোনো ব্যত্যয় হবে না। কমিটি প্রভাবমুক্ত পরিবেশে তদন্ত করবে। কমিটি যে সুপারিশ দেবে, সে অনুযায়ী ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা গতকাল সকালে অবসরপ্রাপ্ত সেনা কর্মকর্তা সিনহা মোহাম্মদ রাশেদের মা নাসিমা আক্তারকে ফোন করে সমবেদনা ও সান্ত্বনা জানিয়েছেন। তিনি এ ঘটনার সুষ্ঠু তদন্তের আশ্বাস দিয়েছেন।

নাসিমা আক্তার এ ঘটনার সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ তদন্ত দাবি করে বিচার চান। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা তাঁকে সুষ্ঠু তদন্তের মাধ্যমের বিচারের আশ্বাস দেন। নাসিমা আক্তার ফোন করে সমবেদনা জানানোর জন্য প্রধানমন্ত্রীর প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন।

সংবাদের ধরন : বাংলাদেশ নিউজ : নিউজ ডেস্ক