বিস্তারিত

মেঘনা নদীতে বরযাত্রীবাহী ট্রলারডুবি, নববধূসহ ৭ জনের লাশ উদ্ধার

ছবি : সংগ্রহকৃত

মেঘনা নদীতে বর যাত্রীবাহী ট্রলারডুবির ঘটনা ঘটেছে। এ ঘটনায় এখন পর্যন্ত তাসলিমা নামে এক নববধূ ও শিশুসহ ৭ জনের লাশ উদ্ধার করেছে নৌ-পুলিশ ও কোস্টগার্ড।

নোয়াখালীর বিচ্ছিন্ন দ্বীপ হাতিয়ার ক্যারিংচর থেকে ভোলার মনপুরা যাওয়ার পথে মঙ্গলবার বিকাল ৩টার দিকে মেঘনা নদীতে বর যাত্রীবাহী ট্রলার ডুবির ঘটনা ঘটে। তীব্র স্রোতের মুখে পড়ে ট্রলারটি ডুবে যায়। কেউ কেউ সাঁতরে তীরে উঠতে পেরেছে। তবে এখনও অনেকে নিখোঁজ আছেন। তাদের উদ্ধারে কোস্ট গার্ড ও নৌ বাহিনীর সদস্যরা কাজ করছেন।

হাতিয়া থানার পরিদর্শক জানান, মঙ্গলবার উপজেলার চানন্দী ঘাট থেকে আনুমানিক ৭০-৮০ জন যাত্রী নিয়ে যাচ্ছিল ট্রলারটি। তীব্র স্রোতের মুখে কেয়ারিংচর এলাকার মেঘনা নদীতে ট্রলারটি ডুবে যায়। এ ঘটনায় নববধূসহ ৭ জনের লাশ উদ্ধার করেছে নৌ-পুলিশ ও কোস্টগার্ড। প্রথমে ৯ জনকে উদ্ধার করে, তার মধ্যে ২ জনকে জীবিত পাওয়া যায়, পরবর্তীতে আরও ৫ জনকে উদ্ধার করা হয়। এ পর্যন্ত সর্বমোট ১৪ জনকে উদ্ধার করা হয়। তবে এ দুর্ঘটনায় নিখোঁজের সঠিক কোনো তথ্য এখনো পাওয়া যায়নি।

দুর্ঘটনার শিকার যাত্রীরা বিভিন্ন ঘাট দিয়ে কূলে উঠছে। তবে সঠিক ভাবে জানা যায়নি এ দুর্ঘটনায় এখন পর্যন্ত কতজন যাত্রী নিখোঁজ রয়েছে। তাৎক্ষণিক নিহতদের নাম ঠিকানা জানা যায়নি। তবে নববধূ নাম তাসলিমা বলে জানা গেছে।

সংবাদের ধরন : বাংলাদেশ নিউজ : নিউজ ডেস্ক