বিস্তারিত

মৃত্যু ও ধ্বংসের খুব কাছাকাছি ছিলাম : দেব

ছবি : সংগ্রহকৃত

ভয়াবহ সুপার সাইক্লোনের দাপটে প্রায় ধ্বংসস্তূপে পরিণত হয়েছে কলকাতা-সহ দক্ষিণবঙ্গ। এমন ধ্বংসলীলা গত পাঁচ দশকে দেখেনি কলকাতার মানুষ। আয়লার ভয়াবহ স্মৃতি এর কাছে নিতান্তই শিশু। এই ঘূর্ণিঝড়ে সব ওলটপালট হয়ে গিয়েছে। অভিনেতা তথা সাংসদ দেব একটি পোস্ট করেছেন সোশ্যাল মিডিআয়।

দেব লিখছেন, কাল রাত্রে যা হল তা আমরা আগে কখনও দেখিনি। মৃত্যু ও ধ্বংসের খুব কাছাকাছি ছিলাম আমরা। আশা করছি খুব শীঘ্রই বাংলা সেরে উঠবে এই ভয়াবহতা থেকে। আরও আশা করছি মানুষ এই সময়ে রাজনীতি না করে এগিয়ে আসবে সাহায্য করতে।

দেবের এই পোস্ট মুহূর্তে ভাইরাল হয়। প্রসঙ্গত, কাল ঝড়ের পরে নবান্নে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় জানিয়েছেন, দক্ষিণবঙ্গর অবস্থা খুব শোচনীয়। মুখ্যমন্ত্রীর কথায়, ‘ধ্বংসস্তূপের উপর দাঁড়িয়ে আছি।

এই ঝড়ে লণ্ডভণ্ড হয়ে গিয়েছে গোটা কলকাতাসহ উত্তর ও দক্ষিণ ২৪ পরগনা। বহু গাছ পড়ে গিয়েছে। ঝড়ের তীব্রতা এতটাই শক্তিশালী ছিল যে উপরে গিয়েছে বহু বৈদ্যুতিক খুঁটি। যার ফলে বহু এলাকা এই মুহূর্তে বিদ্যুৎ বিচ্ছিন্ন। উত্তর ২৪ পরগনায় ৫ হাজার কাঁচা বাড়ি ভেঙে পড়েছে।

প্রবল ঝড়ের তোড়ে কলকাতার একাধিক জায়গায় উপরে পড়েছে গাছ। ভেঙে পড়েছে ট্রাফিক সিগন্যাল। সেন্ট্রাল এভিনিউ-তে একদিকে যান চলাচল বন্ধ করল পুলিশ।

জানা যাচ্ছে, নবান্নে একাধিক ঘরের দরজা ভেঙে গিয়েছে। বিশেষ করে প্রাক্তন মন্ত্রী শোভন চট্টোপাধ্যায় যে ঘরে বসতেন সেই ঘরের দরজা ভেঙে গিয়েছে সম্পূর্ণ ভাবে। নবান্নের মধ্যে জল ঢুকে গিয়েছে বলে জানা যাচ্ছে। অন্যদিকে কলকাতার বিস্তীর্ণ অঞ্চলে প্রচুর গাছ উপড়ে পড়েছে। বন্ধ হয়ে গিয়েছে রাস্তা। ব্যাপক বৃষ্টি হওয়ায় কিছু এলাকায় জমেছে হাটু পানি।

সংবাদের ধরন : বিনোদন নিউজ : নিউজ ডেস্ক