বিস্তারিত

মাদক গ্রুপের অ্যাডমিন দীপিকা

ছবি : সংগ্রহকৃত

এবার আলোচনার কেন্দ্রবিন্দুতে দীপিকা পাড়ুকোন। জিজ্ঞাসাবাদের জন্য সমন পাওয়ার পর থেকেই সংবাদমাধ্যম এবং সোশ্যাল মিডিয়া থেকে দূরত্ব বজায় রেখে চলছেন দীপিকা। স্ত্রীর ছায়াসঙ্গী হয়ে রয়েছেন রণবীর সিংও।

যে হোয়াটসঅ্যাপ গ্রুপের সূত্র ধরে বলিউডে চার অভিনেত্রীকে সমন পাঠানো হয়েছে, তার নাকি অ্যাডমিন দীপিকাই। এনসিবি সূত্রে নাকি এই খবর জানতে পেরেছে বলে ওই সংবাদমাধ্যমের দাবি।

শুক্রবার এনসিবি অফিসে গিয়ে বয়ান রেকর্ড করান রকুলপ্রীত সিং। সোশ্যাল মিডিয়ায় গুঞ্জন, ২০১৮ সালে রিয়ার সঙ্গে মাদক নিয়ে আলোচনা করার কথা নাকি স্বীকার করেছেন অভিনেত্রী। তবে তিনি নিজে মাদক সেবন করতেন না বলেই দাবি করেছেন রকুলপ্রীত।

দীপিকার ম্যানেজার করিশ্মা প্রকাশকে জিজ্ঞাসাবাদ করেন এনসিবি কর্মকর্তারা। পাশাপাশি, করণ জোহরের ধর্মা প্রোডাকশনের এক্সিকিউটিভ প্রোডিউসার ক্ষীতিশ রবিপ্রসাদের বাড়িতে হানা দেয় এনসিবি। সেখান থেকে ক্ষীতিশ ও তাঁর এক মহিলা সঙ্গীকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য নারকোটিক্স কন্ট্রোল ব্যুরোর অফিসে নিয়ে যাওয়া হয়। ধর্মা প্রোডাকশনের সহকারী পরিচালক অনুভব চোপড়াকেও জিজ্ঞাসাবাদ করছেন আধিকারিকরা।

শোনা গিয়েছিল, শনিবার দীপিকার জিজ্ঞাসাবাদের সময় নাকি রণবীর সিং উপস্থিত থাকতে চেয়ে আবেদন জানিয়েছিলেন। কারণ দীপিকার বারবার প্যানিক অ্যাটাক হচ্ছে। পরে আবার শোনা গিয়েছে, এনসিবি কর্মকর্তাদের কাছে এমন কোনও আবেদন জমা পড়েনি। দীপিকার জন্য নাকি ১২ সদস্যের লিগাল টিমের সঙ্গে নিরন্তর আলাপ-আলোচনা চালিয়ে যাচ্ছেন রণবীর।

শুধু দীপিকাই নন, রাকুল প্রীত সিং, সারা আলি খান, শ্রদ্ধা কপূরদের পরপর ডাক দেওয়ার পুরো বিষয়টিকে বড়সড় মাত্রা দেওয়ার পিছনে কোনও প্রচ্ছন্ন রাজনীতি কাজ করছে কি না, সে ব্যাপারেও প্রশ্ন উঠেছে। সুশান্ত সিং রাজপুতের মৃত্যুর তদন্তকে ঘিরে বিহার ও মহারাষ্ট্র সরকারের সংঘাত সামনে এসেছিল। নরেন্দ্র মোদি, নীতীশ কুমারদের দলের বিরুদ্ধে অভিযোগ উঠেছিল, বিহারের ভোটের কথা মাথায় রেখে মৃত্যু তদন্ত নিয়ে রাজনীতি হচ্ছে।

সুশান্তের পরিবারের পক্ষে ওঠা অভিযোগগুলি নিয়ে এই মুহূর্তে সিবিআই, ইডির তৎপরতা দেখা না গেলেও প্রতিদিনই সংবাদ শিরোনামে উঠে আসছে এনসিবি। অভিনেতাকে ঘিরে মূল তদন্ত পথ হারাচ্ছে কিনা, তা-ও আলোচনার বিষয় হয়ে দাঁড়িয়েছে।

সংবাদের ধরন : বিনোদন নিউজ : নিউজ ডেস্ক