বিস্তারিত

মাত্র চার বছর বয়সে কাজলের বাবা মায়ের বিচ্ছেদ হয়

ছবি : সংগ্রহকৃত

কাজল দেবগন একজন ভারতীয় বাঙালি চলচ্চিত্র অভিনেত্রী। যিনি মূলত হিন্দি চলচ্চিত্রে কাজ করেন। ভারতের মুম্বইয়ে মুখার্জী-সমর্থ পরিবারে জন্ম নেওয়া কাজল অভিনেত্রী তনুজা সমর্থ এবং চলচ্চিত্রনির্মাতা শমু মুখার্জী দম্পতির কন্যা। কাজল ভারতের অন্যতম সফল এবং সর্বোচ্চ পারিশ্রমিক প্রাপ্ত অভিনেত্রী। কর্মজীবনে তিনি বারটি ফিল্মফেয়ার পুরস্কার মনোনয়নের মধ্যে ছয়টি পুরস্কার জিতেছেন। তার মাসী নূতনের সাথে যৌথভাবে তিনি সর্বোচ্চ পাঁচবার ফিল্মফেয়ার শ্রেষ্ঠ অভিনেত্রী পুরস্কার বিজয়ের রেকর্ড ধরে রেখেছেন। ২০১১ সালে তিনি ভারত সরকার কর্তৃক দেশের চতুর্থ সর্বোচ্চ সম্মানিত পুরস্কার পদ্মশ্রীতে ভূষিত হয়েছেন।

কাজলের যখন মাত্র চার বছর বয়স, তখনই তাঁর মা তনুজা ও সমু মুখোপাধ্যায়ের বিচ্ছেদ হয়ে যায়। বিচ্ছেদের অর্থও তখন বুঝতেন না অভিনেত্রী। সম্প্রতি সেই অভিজ্ঞতার কথা শেয়ার করেছেন তিনি। জানিয়েছেন বিচ্ছেদের পর পরিস্থিতি আরো খারাপ হতে পারত। কিন্তু সৌভাগ্যবশত তাঁর শৈশব সেই আন্দাজে খারাপ কাটেনি।

কাজল মা তনুজা সম্পর্কে বলেছেন, আমার শৈশব সবচেয়ে সুন্দর ছিল। আমি খুব সৌভাগ্যবতী যে আমায় বড় করেছেন একজন অসাধারণ মানুষ। যিনি আমায় জীবনে অনেক কিছু শিখিয়েছেন। তবে সামান্য ভুলেই আমার শৈশব খারাপ হতে পারত।

আমার বাবা-মার বিচ্ছেদ হয় যখন তখন আমার বয়স মাত্র সাড়ে চার। বিষয়টা খুব খারাপ হতে পারত। আমার অনেক বন্ধু ছিল যাদের বাবা মা এখনও একসঙ্গে রয়েছেন। কিন্তু বলা যায় না, তাঁরা সত্যিই সবচেয়ে ভালো আছেন। তাদের শৈশব এমন কিছু অসাধারণ ছিল না। বরং আমি আমার বাবা মাকে আলাদা আলাদা করে ভালবাসতাম। আবার একসঙ্গেও ভালবাসতাম।

তবে মা তনুজা তাঁর সঙ্গে সবসময় ছিলেন বলে জানিয়েছেন অভিনেত্রী। এমনকি অল্প বয়সে কাজলের বিয়ে করার বিষয়ে রাজি ছিলেন না সমু মুখোপাধ্যায়। তখন মেয়েকে সাহায্য করেছিলেন তনুজা। তারপরে অজয় দেবগনের সঙ্গে বিয়ে করেন কাজল। বহু বছর একসঙ্গে রয়েছেন তাঁরা। এই মুহূর্তে মেয়ে নাইসাকে নিয়ে সিঙ্গাপুরে রয়েছেন কাজল। অন্যদিকে ছেলে যুগের সঙ্গে মুম্বইতে রয়েছেন অজয়।

সংবাদের ধরন : বিনোদন নিউজ : নিউজ ডেস্ক