বিস্তারিত

বেড়েছে ডলারের দাম

ছবি : সংগ্রহকৃত

ডলারের দাম বেড়েছে। ২০১৯ সালের ফেব্রুয়ারি মাসে প্রতি ডলারের দাম ছিল ৮৩ টাকা ৯৫ পয়সা। আর চলতি ফেব্রুয়ারিতে দাম ৮৪ টাকা ৯৫ পয়সায় পৌঁছেছে। অর্থাৎ এক বছরের ব্যবধানে প্রতি ডলারের দাম বেড়েছে এক টাকা। বাংলাদেশ ব্যাংকের মুদ্রা বিনিময় হারের তথ্যে ডলারের দামের এই চিত্র দেখা গেছে।

তবে ১৩ ফেব্রুয়ারি বাংলাদেশ ব্যাংকের তথ্যে ডলারের দাম ৮৪ টাকা ৯৫ পয়সা দেখা গেলেও খোলা বাজারে এর দাম আরো আড়াই থেকে ৩ টাকা বেশি দেখা গেছে। খোলা বাজারে কেউ ডলার কিনতে গেলে তাকে প্রতি ডলারের বিনিময়ে গুণতে হবে ৮৭ থেকে ৮৮ টকা। চলতি বছরের শুরুতে খোলা বাজারে ডলারের দাম ছিল ৮৫ থেকে ৮৬ টাকা।

অর্থনীতিবিদরা বলছেন, ডলারের দাম বাড়লে রপ্তানিকারক এবং রেমিট্যান্স প্রেরণকারীরা লাভবান হন। অন্যদিকে আমদানিকারকরা ক্ষতিগ্রস্ত হন। কারণ পণ্যের আমদানি ব্যয় বেড়ে যায়। ফলে স্থানীয় বাজারে পণ্যমূল্য বেড়ে যায়। এ কারণে মূলস্ফীতি দেখা দেয়। এতে সাধারণ মানুষের জীবনযাত্রার ব্যয় বেড়ে যায়।

তাই ডলারের দাম বাড়লে রপ্তানিকারকরা যদি তা কাজে লাগাতে না পারে তাহলে এতে ভালো না হয়ে ক্ষতি হয় বেশি।

তবে টাকার বিপরীতে ডলারের মূল্য বাড়লেও ইউরোর মূল্য খানিকটা কমছে। ২০১৯ সালের শুরুতে আন্তঃব্যাংক মুদ্রাবাজারে ইউরোর মূল্য ছিল ৯৬ টাকা ১৯ পয়সা। বছর শেষে তা কমে দাঁড়িয়েছে ৯৪ টাকা ৯০ পয়সা। এই হিসাবে এক বছরে টাকার বিপরীতে ইউরোর মান কমেছে ১ টাকা ২৯ পয়সা।

তবে বাংলাদেশ ব্যাংকের সর্বশেষ তথ্য বলছে, ১৩ ফেব্রুয়ারিতে ইউরোর দাম কমে দাঁড়িয়েছে ৯২ টাকা ৩৮ পয়সায়।

সংবাদের ধরন : শিরোনাম নিউজ : নিউজ ডেস্ক