বিস্তারিত

বিন লাদেনের হাতে লেখা উইলে যা আছে

bdnews, bd news, bangla news, bangla newspaper , bangla news paper, bangla news 24, banglanews, bd news 24, bd news paper, all bangla news paper, bangladeshi newspaper, all bangla newspaper, all bangla newspapers, bangla news today,prothom-alo. ছবি : সংগ্রহকৃত

আল-কায়েদা নেতা ওসামা বিন লাদেনের হাতে লেখা একটি উইল প্রকাশ করেছে যুক্তরাষ্ট্র। ওই উইলে কী আছে তা নিয়ে এখন সবার কৌতূহল।গত ২০১১ সালের ২ মে পাকিস্তানের অ্যাবোটাবাদে বিন লাদেনের আস্তানায় অভিযান চালায় মার্কিন নেভি সিলের সদস্যরা।

ওই অভিযানে নিহত হন পশ্চিমা বিশ্বের ত্রাস ওসামা বিন লাদেন। অভিযানে অন্যান্য কাগজপত্রের সঙ্গে এই উইলটি হস্তগত করে নেভি সিলের সদস্যরা।

আরবিতে লেখা উইলের একটি অনুবাদসহ বেশকিছু নথি মঙ্গলবার যুক্তরাষ্ট্রের ডিরেক্টর অব ন্যাশনাল ইন্টেলিজেন্সের অফিস (ওডিএসআই) থেকে প্রকাশ করা হয়।

উইলে দেখা যায়, মৃত্যুর সময় প্রায় দুই কোটি ৯০ লাখ ডলারের সমপরিমাণ সম্পত্তি রেখে গেছেন আল কায়েদার এই শীর্ষ নেতা।

বিন লাদেনের উইলে লেখা আছে, ‘আশা করি আমার ভাই, বোন ও খালারা আমার ইচ্ছা পূরণ করবেন এবং সুদানে যে অর্থ আমার আছে তা জিহাদের জন্য আল্লাহর রাস্তায় ব্যয় করবেন।’

মোট টাকার ১ শতাংশ আল-কায়েদার তাত্ত্বিক শেখ আবু হাফস আল মওরিতানি ওরফে মাহফুজ অলুদ আল-ওয়ালিদকে দিতে বলে যান বিন লাদেন।

আর ভাই আবু ইব্রাহিম আল-ইরাকি সাদকে (জওহর) ‘ওয়াদি আল-আকিক কোম্পানিতে কঠোর পরিশ্রমের জন্য’ ১ শতাংশ দেয়ার কথা বলেছেন তিনি।

এছাড়া নিজের ছেলে, মেয়ে, স্ত্রী এবং নিকট আত্মীয়দের জন্যও সম্পত্তির কিছু অংশ দেওয়ার ইচ্ছা প্রকাশ করে গেছেন বিন লাদেন।

উইলের বক্তব্য অনুযায়ী, বিন লাদেনের সম্পদ রাখা আছে সুদানে। কিন্তু সেগুলো নগদ টাকায়, না অন্য কোনো সম্পদের আকারে আছে তা স্পষ্ট নয়। ওই টাকার কোনো অংশ ‘উত্তরাধিকারীরা’ পেয়েছে কি না তা এখনও নিশ্চিত হওয়া যায়নি।

গত শতকের নব্বইয়ের দশকে সুদান সরকারের অতিথি হিসেবে বছর পাঁচেক খার্তুমে কাটিয়েছিলেন আল-কায়েদার এই নেতা।

ওই উইলের সঙ্গে বিন লাদেনের লেখা কয়েকটি চিঠিও প্রকাশ করেছে যুক্তরাষ্ট্র সরকার। তার আশংকা ছিল, তার স্ত্রীর দাঁতে ডেন্টিস্টরা হয়তো ট্র্যাকিং ডিভাইস বসিয়ে দিয়েছেন।

সংবাদের ধরন : আন্তর্জাতিক নিউজ : স্টাফ রিপোর্টার