বিস্তারিত

বিএনপির দুই শীর্ষ পদে নির্বাচনের তফসিল ঘোষণা

ছবি : সংগ্রহকৃত

বিএনপির আসন্ন ষষ্ঠ জাতীয় কাউন্সিল সামনে রেখে দুই শীর্ষ পদে নির্বাচনের তফসিল ঘোষণা করেছে দলটি। আগামী ১৯ মার্চ কাউন্সিলের দিন দলের চেয়ারপারসন ও সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যান পদে ভোট হবে বলে জানিয়েছেন দলের নির্বাচন কমিশনের চেয়ারম্যান ব্যারিস্টার জমির উদ্দিন সরকার। আজ সোমবার এক সংবাদ সম্মেলনে এই তফসিল ঘোষণা করে তিনি বলেন, দুই শীর্ষ পদে নির্বাচন করতে চাইলে ২ মার্চ থেকে মনোনয়নপত্র সংগ্রহ করা যাবে, জমা দেয়া যাবে ৪ মার্চ পর্যন্ত। এরপর ৫ মার্চ বাছাই হবে এবং ৬ মার্চ পর্যন্ত মনোনয়নপত্র প্রত্যাহার করা যাবে।

নয়া পল্টনে দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে রিটার্নিং অফিসারের অস্থায়ী কার্যালয়ে সকাল ১০টা থেকে বিকাল ৪টা পর্যন্ত মনোনয়নপত্র সংগ্রহ ও জমা দেয়া যাবে। জমির উদ্দিন সরকার বলেন, চেয়ারম্যান (চেয়ারপারসন) ও সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যান পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতাকারীরা নিজে কিংবা লিখিতভাবে মনোনীত এজেন্টের মাধ্যমে মনোনয়নপত্র সংগ্রহ করতে, জমা দিতে বা প্রত্যাহার করতে পারবেন। ভোট গণনার সময়ও উপস্থিত থাকতে পারবেন।

বিএনপির নির্বাচন কমিশনের সদস্য হারুন আল রশিদ, সদস্য সচিব ব্যারিস্টার আমীনুল হক, রিটার্নিং অফিসার নজরুল ইসলাম খান, সহকারী রিটার্নিং অফিসার আবদুল মান্নান তফসিল ঘোষণার সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন। সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে জমির উদ্দিন সরকার বলেন, কাউন্সিল পেছানোর কোনো সম্ভাবনা নেই। আগামী ১৯ মার্চ নির্ধারিত তারিখেই বিএনপির কাউন্সিল অনুষ্ঠিত হবে। কাউন্সিলের ভেনু পাওয়া নিয়ে জানতে চাইলে বলেন, কাউন্সিল অধিবেশনে সারা দেশ থেকে কাউন্সিলররা আসবেন। বিভিন্ন দলের নেতা ও বিদেশি প্রতিনিধিরা সেখানে আসবেন। আশা করি, সরকার আমাদের কাউন্সিলে বাধা সৃষ্টি করবে না। আমরা এ ধরনের কোনো আশঙ্কাও করি না।

সংবাদ সম্মেলনের আগে সকালে বিএনপির মহাসচিবের কক্ষে এক রুদ্ধদ্বার বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। সেখানে মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর, জমির উদ্দিন সরকার, নজরুল ইসলাম খান, অ্যাডভোকেট আব্দুস সালাম আজাদ প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন। উল্লেখ্য, ১৯৮৪ সাল থেকে বিএনপির চেয়ারপারসন পদে রয়েছেন বেগম খালেদা জিয়া। ছয় বছর আগে সর্বশেষ কাউন্সিলেও তাকেই নেতৃত্বের আসনে রাখা হয়। ওই কাউন্সিলেই বিএনপিতে সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যান পদ তৈরি করে সেখানে খালেদা জিয়ার বড় ছেলে তারেক রহমানকে বসানো হয়। বিএনপির চেয়ারম্যান ও সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যান পদের প্রার্থী হতে বয়স হতে হবে অন্তত ৩০ বছর। তাকে দলের চাঁদাদাতা সদস্য হতে হবে।

জানা যায়, বিএনপির সর্বশেষ কাউন্সিল হয়েছিল ২০০৯ সালের ৬ ডিসেম্বর বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে। একাধিক মামলায় গ্রেফতারি পরোয়ানা নিয়ে গত আট বছর ধরে লন্ডনে অবস্থানরত তারেক রহমান সেখান থেকেই ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে ওই কাউন্সিলে বক্তৃতা করেছিলেন। তিনি না ফিরলে এবং এবার দলের নির্বাচিত নেতা হতে চাইলে নিয়ম অনুযায়ী ‘লিখিতভাবে মনোনীত এজেন্টের মাধ্যমে’ তাকে মনোনয়নপত্র তোলা ও জমা দেয়ার প্রক্রিয়া সম্পন্ন করতে হবে। জিয়াউর রহমানের মৃত্যুর পর বিএনপির চেয়ারম্যান পদে আসেন বিচারপতি আব্দুস সাত্তার। এরপর ১৯৮৪ সালে দলের ইলেক্টোরাল কলেজ ভোটে খালেদা জিয়া চেয়ারপারসন হন। ২০০৯ সালের কাউন্সিলেও তাকে চেয়ারপারসন নির্বাচিত করা হয়।

সংবাদের ধরন : র্শীষ সংবাদ নিউজ : স্টাফ রিপোর্টার