বিস্তারিত

বাড্ডায় বাবা-মেয়েকে হত্যা করে চার ব্যক্তি

ছবি : সংগ্রহকৃত

রাজধানীর উত্তর বাড্ডায় গতকাল বুধবার গভীর রাতে বাবা-মেয়েকে হত্যা করে চার ব্যক্তি। বাড়িওয়ালি নাসিমা দুলালের কাছে গাড়িচালক জামিলের স্ত্রী আর্জিনা খাতুন জানান।

জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আর্জিনাকে হেফাজতে নিয়েছে পুলিশ। ঘটনার বিবরণ দিতে গিয়ে আরজিনা জানান, জামিলের কিছু পরিচিত মানুষ টাকার লেনদেনের বিষয়ে কিছুদিন থেকে তাকে হুমকি দিচ্ছিল। গতকাল রাতে চারজন বাসায় এসে তাঁর স্বামী-মেয়েকে হত্যা করে। তাদের তিনি চেনেন না। টাকা নিয়ে জামিলের সঙ্গে অনেকের শত্রুতা ছিল।

আজ বৃহস্পতিবার সকালে উত্তর বাড্ডার বাড়ি থেকে জামিল (৩৮) ও তাঁর মেয়ে নুসরাতের (৯) লাশ উদ্ধার করা হয়। তিনতলা বাড়ির ছাদের একটি রুম ভাড়া নিয়ে স্ত্রী ও দুই সন্তানকে নিয়ে থাকতেন জামিল। এই কক্ষে জামিলকে রক্তাক্ত অবস্থায় পাওয়া গেলেও মেয়ে নুসরাতের শরীরে কোনো আঘাতের চিহ্ন পায়নি। সার্বিক অবস্থা দেখে ধারণা করা হচ্ছে, নুসরাতকে শ্বাসরোধ করে হত্যা করা হয়েছে।

জ্যোস্না বেগম আরো বলেন, তারা যখন ঘরে ঢুকে লাশ দেখে চিৎকার দিয়েছিল তখন সাড়ে তিন বছর বয়সী শিশু আলপিন বাবার পায়ের কাছে বসে কাঁদছিল। এরপর পুলিশ এসে লাশ উদ্ধার করে নিয়ে যায়। একই সঙ্গে আর্জিনা ও আলপিনকেও থানায় নিয়ে যায়।

এদিকে বাড়ির ছাদে অন্য রুমে জামিলের দেওয়া সাবলেটে এক যুবক থাকতেন। হত্যাকাণ্ডের পর থেকে তিনি পলাতক রয়েছেন জানিয়ে পুলিশ, ঘটনার পারিপার্শ্বিকতা বিবেচনা করে তদন্ত করা হচ্ছে।

 

সংবাদের ধরন : বাংলাদেশ নিউজ : নিউজ ডেস্ক