বিস্তারিত

বাড়িতে সহজে ‘টার্কি মুরগী’ চাষ পদ্ধতি

ছবি : সংগ্রহকৃত

কিভাবে টার্কি মুরগী পালন করতে হবে

টার্কি একটি পাখির নাম । এটি মূলত বন্য পাখি হলেও বর্তমানে একে গৃহে পালন করা হচ্ছে। এটি অনেক বড় আঁকারের একটি পাখি। প্রায় ছয়মাস পালন করলে এক একটি টার্কি পাখির স্ত্রী জাতের ওজন হয় প্রায় পাঁচ থেকে ছয় কেজি এবং পুরষ জাতের ওজন হয় প্রায় সাত থেকে আট কেজি। পাখির মাংসের মধ্যে দেখা যায় হাস, মুরগী, কোয়েল, তিতির এর পর টার্কির মাংসের অবস্থান। একে বাড়িতে দেশী মুরগীর মত করে পালন করা যায় । বর্তমানে টার্কি পালন করে অনেক বেকার যুবক তাঁদের আর্থিক স্বচ্ছলতা এনেছে। টার্কি পালন করলে পরিবারের খাদ্য চাহিদা পূরণ করার পাশাপাশি বাড়তি আয়ের সুযোগ সৃষ্টি হয়। আপনি ইচ্ছা করলে আপনার বাড়িতে টার্কির চাষ করতে পারেন । আসুন জেনে নেই কিভাবে আপনি আপনার বাড়িতে টার্কির চাষ করবেন।

টার্কি পালনে কি ধরণের খাঁচা বা ঘর বাছাই করবেন

বাড়িতে টার্কি পালন করার জন্য আপনাকে প্রথমে উপযুক্ত ঘর তৈরি করতে হবে। এক্ষেত্রে বেশ কিছু পদ্ধতি আছে। এক্ষেত্রে আপনি টার্কির ঘর বানানোর জন্য বাঁশ, বেত, টিন, ছন, খড় ইত্যাদি ব্যবহার করতে পারেন। ঘরের বেড়া বাঁশের দরজা বা কাঠের তক্তা দিয়ে তৈরি করতে হবে। এছাড়া মাটির দেয়ালও তৈরি করা যাবে। বেড়া বা দেওয়ালে আলো বাতাস চলাচলের জন্য ছিদ্র থাকতে হবে। টার্কি খোলামেলা পরিবেশেও পালন করা যায়। কিংবা আপনি অর্ধ আবদ্ধ অবস্থায় পালন করতে পারেন।

টার্কির জাত বাছাই করা

বিশ্বে অনেক প্রজাতির টার্কি রয়েছে। এদের জাত যেমন ভিন্ন তেমনি নামও ভিন্ন ভিন্ন। তবে তাঁর মধ্যে উল্লেখযোগ্য হল ব্রড ব্রেস্টেড ব্রোঞ্জ, ব্রড ব্রেস্টেড হোয়াইট, বেল্টসভিল স্মল হোয়াইট এবং নন্দনম টার্কি।

টার্কি পালন করার সঠিক সময়

বাড়িতে টার্কি পালন করার জন্য তেমন কোন নির্দিষ্ট সময় ধরাবাধা নেই। আপনি ইচ্ছা করলে বছরের যেকোন সময়ে টার্কি পালন করতে পারেন।

কিভাবে টার্কি পালন করবেন ও সঠিক নিয়মে যত্ন নিবেন

বাড়তে টার্কি পাখি পালন করতে হলে সঠিক নিয়মে যত্ন নিতে হবে। টার্কি পাখি সাধারণত নিজেই তাঁর নিজের ডিমে তা দিয়ে বাচ্চা ফুটায়। এছাড়াও টার্কি পাখির ডিম দেশী মুরগী কিংবা ইনকিউবেটর দিয়ে ও ফুটানো যায়। টার্কি কে মূলত তিন অবস্থায় পালন করা যায়। ১। মুক্ত অবস্থায়, ২। অর্ধ মুক্ত অবস্থায়, ৩। বন্ধ অবস্থায়।

বাড়িতে হাঁস মুরগী এর সাথে টার্কি পালন করা যায় ।

সঠিক নিয়মে টার্কি পালনের পদ্ধতি/কৌশল

বাড়তে টার্কি পালনে সাধারণত হাঁস মুরগী কিংবা অন্যান্য প্রানীর তুলনায় একটু বেশী যত্ন নিতে হয় । অন্যদের তুলনায় এদের শক্তি, প্রোটিন ও খনিজের প্রয়োজন বেশি ৷ বাড়িতে টার্কি পালনের ক্ষেত্রে একটু বেশী জায়গার প্রয়োজন হয়। বাড়িতে টার্কি পালনে টার্কির বাসস্থান যথাযথ হতে হবে । এক্ষেত্রে আপনি নারিকেলের ছোবড়া, কাঠের গুড়া, তুষ, বালি ইত্যাদি ব্যবহার করতে পারেন। টার্কির বাচ্চা পালনের ক্ষেত্রে প্রথম দিকে দুই ইঞ্চি পুরু লিটারের প্রয়োজন হয়। টার্কি পাখি সাধারণত ৭ মাস বয়স থেকে ডিম দেয়া শুরু করে।

টার্কির খাবারের পরিমাণ ও সঠিক নিয়মে খাবার প্রয়োগ

টার্কি সাধারণত দেশী মুরগীর মত পালন করতে হবে । দেশি মুরগীর মত টার্কির খাবার সাধারণত সহজলভ্য । টার্কি পালনে আলাদা কোন সুষম খাবারের প্রয়োজন পড়ে না । বর্তমানে বাজারের ব্রয়লার মুরগি ও পশুখাদ্য মিক্সচারই তাদের সাধারণ খাবার । এছাড়াও টার্কি সাধারণত বেশ কিছু খাবার খেয়ে থাকে । যেমন ধান গম, ভুট্টা, সয়াবিন মিল, ঘাসের বীজ, সূর্যমুখী বীজ, ঝিনুক গুড়া ইত্যাদি । তবে মনে রাখবেন টার্কিরা সবুজ শাকপাতা ভালবাসে । তাই টার্কির খাবারের সাথে প্রত্যেহ ৫০% সবুজ শাকসবজি মিশিয়ে দেয়ার চেষ্টা করবেন । তবে যদি আবদ্ধ অবস্থায় টার্কি পালন করা হয় তাহলে টার্কিকে অবশ্যই নিয়মিত খাবার দিতে হবে । খেয়াল রাখতে হবে টার্কির খাবার যেন কোন অসুবিধা না হয় ।

টার্কির রোগ বালাই ও তাঁর প্রতিকার

বাড়িতে টার্কি পালন করার ক্ষেত্রে টার্কির কয়েকটি রোগ বালাই দেখা যায় । টার্কি মারাত্নক কয়েকটি রোগ হল পক্স, এভিয়ান ইনফুলেঞ্জা, মাইটস, সালমোনেলোসিস, কলেরা বেশী দেখা যায় । এজন্য টার্কি পালনের সময় টার্কিকে নিয়মিত টিকা দিতে হবে । তবে মনে রাখবেন কোন অবস্থায় রোগাক্রান্ত পাখিকে টিকা দেয়া যাবে না । তবে যদি কোন টার্কি অসুস্থ্য হয় তাহলে উক্ত টার্কিকে যথাশীঘ্রই অন্যান্য টার্কি থেকে সরিয়ে নিতে হবে । অসুস্থ্য টার্কির সংস্পর্শে থাকলে বাকি সুস্থ টার্কিও আক্রান্ত হতে পারে। আর বেশী সমস্যা হলে চিকিৎসকের পরামর্শ নিতে হবে। তবে খেয়াল রাখবেন পরিবেশের কারণে অনেক রোগ সংক্রমণ হতে পারে ।

টার্কির মাংসের খাদ্য গুণাগুণ (যদি থাকে)

টার্কির মাংসে প্রচুর পরিমাণে খাদ্য গুণাগুণ বিদ্যমান । টার্কির মাংস সুস্বাদু এবং স্বাদ ও পুষ্টিগুন অনেক বেশি এর মাংসে প্রচুর পরিমাণে প্রোটিন আছে । এবং টার্কির মাংসে চর্বি অনেক কম । এর মাংস আন্যান্য পাখীর মাংসের চেয়ে বেশী পুষ্টিকর । টার্কির মাংসে অধিক পরিমাণ জিংক, লৌহ, পটাশিয়াম, বি৬ ও ফসফরাস থাকে ।

টার্কির মাংসের ঔষধি গুনাগুন

টার্কির মাংসে প্রচুর পরিমাণে ওষুধি গুণাগুণ বিদ্যমান । এর মাংসে এমাইনো এসিড ও ট্রিপটোফেন অধিক পরিমাণে থাকায় এর মাংস খেলে শরীরে রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বহুগুনে বেড়ে যায় ।

টার্কি পালনের সুবিধা

বাড়িতে টার্কি পালনে অনেক সুবিধা । টার্কি পাখি থেকে অনেক মাংস পাওয়া যায় । টার্কি মুরগী ব্রয়লার মুরগীর চাইতেও দ্রুত বর্ধনশীল। বাড়িতে টার্কি পালনে খরচ অনেক কম এবং তুলনামূলক ভাবে ঝামেলাহীন । টার্কির মাংস গরুর মাংসের বিপরীত হিসেবে খেতে পারেন ।

সংবাদের ধরন : ব্যাবসা-বাণিজ্য নিউজ : নিউজ ডেস্ক