বিস্তারিত

বাংলাদেশ ও পাকিস্তান সীমান্তে কঠোর নিরাপত্তা ভারত সরকারের

ছবি : সংগ্রহকৃত

অনুপ্রবেশের মতো ঘটনা ঠেকাতে বাংলাদেশ ও পাকিস্তান সীমান্ত বরাবর রাডার, সেন্সর ও ক্যামেরা বসানোর চিন্তাভাবনা নিয়েছে ভারত সরকার। এই মর্মে সরকার একটি পাইলট প্রজেক্টও হাতে নিয়েছে। মঙ্গলবার লোকসভায় দাঁড়িয়ে এক লিখিত জবাবে এই কথা বলেন ভারতের স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী কিরেন রিজিজু।

লোকসভার অধিবেশনে এই তথ্য দিয়ে কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী জানান, ‘দুর্গম ও জলবেষ্টিত থাকার কারণে সীমান্তে যেখানে কাঁটাতারের বেড়া এখনও দেওয়া যায়নি সেই সব স্থানে প্রযুক্তিগত সমাধানের সহায়তা নেওযার সিদ্ধান্ত নিয়েছে ভারত সরকার। এই লক্ষ্যে অরক্ষিত সীমান্ত বরাবর একাধিক স্থানে রাডার, সেন্সর, ক্যামেরা, কমিউনিকেশন নেটওয়ার্ক ও কমান্ড অ্যান্ড কন্ট্রোল সলিউশন’-এর মিলিত আকারে এই ব্যবস্থা নেওয়া হবে’।

প্রাথমিক ভাবে ভারতের জম্মু-কাশ্মীর, পাঞ্জাব, স্যার ক্রিক (গুজরাট), দক্ষিণ বঙ্গ (পশ্চিমবঙ্গ), ত্রিপুরা সীমান্ত বরাবর এই পাইলট প্রজেক্টটি চালু করার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। ভারত-পাক সীমান্তের জম্মু অঞ্চলে এই প্রকল্প বাবদ ১০ কোটি রুপি বরাদ্দ করা হয়েছে বলেও এদিন সংসদে জানান রিজিজু। সম্প্রতি ভারতের মাটিতে একাধিক সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ডের ঘটনা ঘটেছে যেখানে সন্ত্রাসীরা পাকিস্তান সীমান্ত দিয়েই ভারতে প্রবেশ করেছিল বলে একাধিক রিপোর্টে উল্লেখ। দেশটির গোয়েন্দা রিপোর্টেও সেই তথ্য প্রকাশ পেয়েছে। চলতি বছরের ২ জানুয়ারী পাঞ্জাবের পাঠানকোটে ভারতীয় বিমান ঘাঁটিতেও পাক মদদপুষ্ট জঙ্গিদের হাত রয়েছে বলে ভারতের নিরাপত্তা বাহিনী জানিয়েছে।

সংবাদের ধরন : আন্তর্জাতিক নিউজ : স্টাফ রিপোর্টার