বিস্তারিত

বাংলাদেশকে ফ্রান্স-কানাডার স্বীকৃতি

ছবি : সংগ্রহকৃত

ইতিহাস আজীবন কথা বলে। ইতিহাস মানুষকে ভাবায়, তাড়িত করে। প্রতিদিনের উল্লেখযোগ্য ঘটনা কালক্রমে রূপ নেয় ইতিহাসে। সেসব ঘটনাই ইতিহাসে স্থান পায়, যা কিছু ভালো, যা কিছু প্রথম, যা কিছু মানবসভ্যতার অভিশাপ-আশীর্বাদ।ইতিহাসের দিনপঞ্জি মানুষের কাছে সবসময় গুরুত্ব বহন করে। এই গুরুত্বের কথা মাথায় রেখে বাংলানিউজের পাঠকদের জন্য নিয়মিত আয়োজন ‘ইতিহাসের এই দিন’।

১৪ ফেব্রুয়ারি ২০১৬, রোববার। ২ ফাল্গুন, ১৪২২ বঙ্গাব্দ। এক নজরে দেখে নেওয়া যাক ইতিহাসের এই দিনে ঘটে যাওয়া উল্লেখযোগ্য ঘটনা, বিশিষ্টজনের জন্ম-মৃত্যুদিনসহ গুরুত্বপূর্ণ আরও কিছু বিষয়।

ঘটনা
• ১৬৬৩ – কানাডা ফ্রান্সের রাজকীয় প্রদেশ হিসেবে পরিচিত হয়।
• ১৭৭৯ – ইংরেজ নৌ অভিযাত্রী ক্যাপ্টেন কুক হাওয়াই দ্বীপের আদিবাসীদের হাতে নিহত হন।
• ১৮৮১ – কলকাতায় অবিভক্ত ভারতের প্রথম হোমিওপ্যাথিক মেডিকেল কলেজ স্থাপিত।
• ১৮৯৩ – যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে হাওয়াই একীভূত হয়।
• ১৯৫০ – চীন-সোভিয়েত মৈত্রী চুক্তি।
• ১৯৫৮ – জর্ডান ও ইরাক সংযুক্ত হতে প্রস্তুত বলে ঘোষণা আসে।
• ১৯৭২ – স্বাধীন বাংলাদেশকে ফ্রান্স ও কানাডার স্বীকৃতি দান।

জন্ম
• ১৯৪৪ – পার্বত্য চট্টগ্রামের আদিবাসীদের নেতা সন্তু লারমা। তিনি ১৯৭২ সালে গঠিত পার্বত্য চট্টগ্রাম জনসংহতি সমিতির প্রতিষ্ঠাতা সদস্য। নিয়মতান্ত্রিকভাবে আদিবাসীদের অধিকারের দাবি আদায় সম্ভব হবে না ভেবে ১৯৭৩ সালে সন্তু লারমা ও অন্যান্যরা সংগঠনের সামরিক শাখা শান্তিবাহিনী গঠন করেন। একইসঙ্গে সিদ্ধান্ত নেন সশস্ত্র সংগ্রাম করার। এর দু’বছর পর ১৯৭৫ সালে সন্তু লারমা আত্মগোপনে যান। কাছাকাছি সময়ে সংগঠনের মধ্যেই তৈরি হয় অভ্যন্তরীণ কোন্দল। সন্তু লারমা দল পুনরায় গঠনের চেষ্টা করেন। পরে ভারপ্রাপ্ত সভাপতি হিসেবে নির্বাচিত হন। ১৯৮৫ সালে অনুষ্ঠিত সংগঠনের জাতীয় সম্মেলনে কেন্দ্রীয় কমিটি গঠিত হয়। যার সভাপতি নির্বাচিত হন সন্তু লারমা।

মৃত্যু
• ১১৬৬ – ইসলাম ধর্মের আধ্যাত্মিক ব্যক্তিত্ব আব্দুল কাদের জিলানী। গাউস-উল-আযম হিসেবে আখ্যায়িত এ ধর্মপ্রচারক ছিলেন উচ্চমার্গে একজন বড়পীর।

সংবাদের ধরন : বাংলাদেশ নিউজ : স্টাফ রিপোর্টার