বিস্তারিত

বলিউডে নিজের জায়গা করে ফেলেছেন ‘কৃতি স্যানন’

ছবি : সংগ্রহকৃত

পাঁচ বছরে বলিউডে কৃতি স্যানন নিজের জায়গা করে ফেলেছেন। তাঁকে আর কোনও ভাবেই নবাগতা বলা যাবে না।

২০১৪ সালে ‘হিরোপন্তি’ ছবি দিয়ে বলিউডের কেরিয়ার শুরু করেছিলেন কৃতি। সাক্ষাৎকারে কৃতি বলেছেন, ছবি নির্বাচনের ক্ষেত্রে তাঁর প্রথম শর্তই হল, ছবিটার প্রতি একশো শতাংশ বিশ্বাস। সেই বিশ্বাসটা যদি চিত্রনাট্য শুনে আসে, তবেই তিনি ছবির জন্য ‘হ্যাঁ’ বলেন। হাতে কোনও কাজ নেই বলেই যে একটা ছবির কাজ নিয়ে নিতে হবে, তার কোনও মানে নেই। বরং হাতে কাজ না থাকলে একটু সময় নিয়ে ভেবেই সিদ্ধান্ত নিতে ভালোবাসেন তিনি।

সেই লক্ষ্যেই এবার তাঁর টার্গেট ‘মিমি’। যে ছবিতে নিজের চরিত্রের প্রয়োজনে আপাতত ১৫ কেজি ওজন বাড়ানোর কাজ করছেন নায়িকা। এ নিয়ে কৃতীর বক্তব্য, আমার কাছে এটা একটা চ্যালেঞ্জের মতো। আমার শরীরের জন্যও এটা একেবারে নতুন। মেটাবলিজম ও ক্যালোরি নিয়ে কাজ করতে হবে। হাতে খুব কম সময়।

তবে এই ট্রান্সফরমেশন নিয়ে দারুণ উচ্ছ্বসিত নায়িকা। মনের মতো এবং হৃদয়ের খুব কাছের চরিত্রের জন্য সব করতে রাজি তিনি। সারোগেসি নিয়ে তৈরি হচ্ছে ছবির চিত্রনাট্য। পোস্টারে দেখা যাচ্ছে এক হাত থেকে অন্য হাতে যাচ্ছে একরত্তি। ঘুমিয়ে রয়েছে ফুলের মতো। ছবির ক্যাপশনে কৃতী লিখেছেন, অপ্রত্যাশিত মিরাকল মানেই জীবন। একটা অসাধারণ জার্নির জন্য তৈরি হয়ে নিন।

২০১০-এর মরাঠি ছবি ‘মালা আই ভ্যাচি’ থেকে মিমি অনুপ্রাণিত। ওই ছবিতে দেখা গিয়েছিল সমরুদ্ধি পোরে, উর্মিলা কানিতকর, সুলভা দেশপান্ডেদের। ২০১১ সালে জাতীয় পুরস্কার পেয়েছিল ছবি। ভারতে সারোগেসি নিয়ে কতটা খোলাখোলি রয়েছে সেই কথাই বলবে কৃতীর নতুন ছবি। ছবির পরিচালক লক্ষ্মণ উটেকার। এর আগে লুকা চুপ্পি-তে কৃতী কাজ করেছেন এই পরিচালকের সঙ্গে।

সংবাদের ধরন : বিনোদন নিউজ : নিউজ ডেস্ক