বিস্তারিত

বরিশালে ঝুঁকিপূর্ণ এলাকার মানুষকে আশ্রয় কেন্দ্রে নেয়া হচ্ছে

ছবি : সংগ্রহকৃত

বঙ্গোপসাগরে সৃষ্ট ঘূর্ণিঝড় আম্ফান এরই মধ্যে শক্তি সঞ্চয় করে অতি প্রবল ঘূর্ণিঝড়ে পরিণত হয়েছে। বরিশালেও দুপুর ৩টা থেকে আকাশ মেঘাচ্ছন্ন এবং থেমে থেমে গুঁড়ি গুঁড়ি বৃষ্টি হচ্ছে। রাত ১০টা পর মাঝারি থেকে ভাড়ি বৃষ্টিপাত হয়েছে। আকাশ মেঘাচ্ছন্ন এবং থেমে থেমে গুঁড়ি গুঁড়ি বৃষ্টি হচ্ছে।

বঙ্গোপসাগরে সৃষ্ট নিম্নচাপ ঘূর্ণিঝড় আম্ফান মোকাবিলায় সবধরনের প্রস্তুতি গ্রহণ করেছে বরিশালের জেলা প্রশাসন।

জেলা প্রশাসক বরিশালের সার্বিক নির্দেশনায় ও তৎপরতায় উপজেলা নির্বাহী অফিসার কর্তৃক ঘূর্ণিঝড় আম্পান মোকাবেলায় সকল প্রকার ক্ষয়ক্ষতি রোধে এরিমধ্যে সকল প্রকার প্রস্তুতি শেষ করেছে জেলা ও উপজেলা প্রশাসন। তবে এবার চলমান করোনা ভাইরাসের প্রভাব কে মাথায় রেখে জেলা প্রশাসনের নানা ধরনের উদ্যোগের পাশাপাশি আশ্রয় কেন্দ্রের সংখ্যা বৃদ্ধি করা হয়েছে।

ঘূর্ণিঝড় আম্পান মোকাবেলায় ১০ টি উপজেলায় ১০৭১ টি আশ্রয় কেন্দ্রে এরিমধ্যে প্রায় ১ লক্ষ ৭ হাজার ২৮৫ জন মানুষ আশ্রয় নিয়েছে। পাশাপাশি ২৪৯৯ টি গবাদিপশু আশ্রয় কেন্দ্রে ওঠানো হয়েছে।

জেলা প্রশাসক এর নির্দেশে আশ্রয় কেন্দ্রো গুলোতে পরিষ্কার-পরিচ্ছন্নতা পর্যাপ্ত আলোর ব্যবস্থা এবং পানি সরবরাহসহ শুকনো খাবারের পাশাপাশি খাবারের আয়োজন করেছে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তারা। এরই ধারাবাহিকতায় ১০ টি উপজেলায় মানসম্মত খাবারের ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে।

বিকাল থেকে এসকল আশ্রয় কেন্দ্র গুলো পরিদর্শন করেন জেলা প্রশাসনের অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক ও উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাসহ অন্যান্য কর্মকর্তাবৃন্দ। জেলা প্রশাসকের নির্দেশনায় উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাগণ ৭ নম্বর বিপদ সংকেত পেয়েই ঘূর্ণিঝড় আম্পান মোকাবেলায় সারাদিন ধরে জনসাধারণকে আশ্রয়কেন্দ্রে আনার পাশাপাশি মাইকিং করেন এবং তাদের খাবারের সুব্যবস্থা করেন।

সংবাদের ধরন : বাংলাদেশ নিউজ : Md Shahzada Hira