বিস্তারিত

পাকিস্তানের প্রথম নারী লেফট্যানেন্ট জেনারেল

ছবি : সংগ্রহকৃত

পাকিস্তানের ইতিহাসে প্রথমবারের মতো সেনাবাহিনীর লেফটেন্যান্ট জেনারেল পদে পদোন্নতি পেয়েছেন এক নারী কর্মকর্তা। মঙ্গলবার নিগার জোহর নামের ওই কর্মকর্তাকে এই পদোন্নতি দেওয়া হয়।

পাকিস্তানের আন্তঃবাহিনী জনসংযোগ দফতরের (আইএসপিআর) মহাপরিচালক মেজর জেনারেল বাবর ইফতেখার জানিয়েছেন, একই সঙ্গে ওই কর্মকর্তাকে দেশের ইতিহাসে প্রথম নারী সার্জন জেনারেল হিসেবেও নিয়োগ দেওয়া হয়েছে। এই পদোন্নতিকে পাকিস্তানি নারীদের ক্ষমতায়নের পথে একটি মাইলফলক আখ্যা দিয়েছেন দেশটির বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের নেতারা। দেশটির সংবাদমাধ্যম ডনের প্রতিবেদন থেকে এসব তথ্য জানা গেছে।

লেফটেন্যান্ট জেনারেল পদে পদোন্নতি পাওয়া নিগার জোহর ২০১৭ সালে পাকিস্তান সেনাবাহিনীর ইতিহাসে তৃতীয় নারী হিসেবে মেজর জেনারেল র‍্যাঙ্ক পান। সামরিক পরিবার থেকে উঠে আসা নিগার জোহরের বাবা কর্নেল কাদির পাকিস্তানের সামরিক গোয়েন্দা সংস্থা আইএসআই’এ কাজ করেছেন। তার চাচা অবসরপ্রাপ্ত মেজর মোহাম্মদ আমিরও আইএসআই’এ কাজ করেছেন। ৩০ বছর আগে এক গাড়ি দুর্ঘটনায় নিগার জোহরের বাবা-মায়ের মৃত্যু হয়।

পাকিস্তান সরকারের তথ্য অনুযায়ী নিগার জোহর কেবল একজন ডাক্তারই নন তিনি দক্ষ একজন শ্যুটারও। রাওয়ালপিন্ডিতে স্কুল জীবন শেষ করে তিনি ১৯৮৫ সালে আর্মি মেডিক্যাল কলেজ থেকে স্নাতক ডিগ্রি লাভ করেন। ২০১৫ সালে তিনি লাহোরের হেলথ সাইন্স বিশ্ববিদ্যাল থেকে জনস্বাস্থ্যের ওপর মাস্টার্স ডিগ্রি অর্জন করেন। সশস্ত্রবাহিনীর একটি হাসপাতাল/ইউনিট পরিচালনার দায়িত্ব পাওয়া প্রথম নারী কর্মকর্তা হওয়ার সম্মানও রয়েছে তার ঝুলিতে।

নবনিযুক্ত লেফটেন্যান্ট জেনারেল নিগার জোহরকে অভিনন্দন জানিয়ে পাকিস্তান ন্যাশনাল অ্যাসেম্বলির বিরোধী দলীয় নেতা শাহবাজ শরিফ বলেছেন, এর মধ্য দিয়ে দেশের মেয়ে শিশু ও তরুণ নারীদের কাছে একটি জোরালো বার্তা যাবে। পিএমএল-এন নেতা আহসান ইকবাল নিগার জোহরের এই অর্জনকে পাকিস্তানের সেইসব নারীদের অর্জন আখ্যা দেন যারা জাতীয় উন্নয়নের সব ক্ষেত্রেই জোরালো ভূমিকা রাখছে।

সংবাদের ধরন : আন্তর্জাতিক নিউজ : নিউজ ডেস্ক