বিস্তারিত

নিহতদের স্মরণে আজ এক ভার্চুয়াল আলোচনা সভায় প্রধানমন্ত্রী

ছবি : সংগ্রহকৃত

একুশে আগস্ট গ্রেনেড হামলায় বিএনপি জড়িত বলেই তারা আলামত নষ্ট করে দিয়েছে। গ্রেনেড হামলায় নিহতদের স্মরণে আজ শুক্রবার আয়োজিত এক ভার্চুয়াল আলোচনা সভায় এ কথা বলেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, খালেদা জিয়া ক্ষমতায় এসেই ২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলা ঘটায়। আর এর সঙ্গে তার ছেলে তারেক রহমান যে জড়িত, তাদের কথাতেই তো বের হয়ে এসেছে যে তারা কোথায় মিটিং করেছে, কীভাবে ষড়যন্ত্র করেছে। বিএনপি সরকার যদি এতে জড়িত নাই থাকে, তাহলে তারা আলামতগুলো কেন নষ্ট করল? ওই গ্রেনেড হামলার পরই তখনকার সিটি করপোরেশনের মেয়র সাদেক হোসেন খোকা লোকজন নিয়ে এসে পুরো এলাকা ধুয়ে ফেলে।

শেখ হাসিনা আরো বলেন, ‘ঘটনাগুলোর আগে খালেদা জিয়া যে বক্তৃতাগুলো দিয়েছে, যেমন কোটালীপাড়ায় বোমা পুঁতে রাখার আগে বলেছিল, আওয়ামী লীগ ১০০ বছরেও ক্ষমতায় আসতে পারবে না। ২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলার আগে খালেদা জিয়ার বক্তৃতা ছিল, শেখ হাসিনা প্রধানমন্ত্রী তো দূরের কথা বিরোধীদলীয় নেতাও কোনোদিন হতে পারবে না। এই ভবিষ্যদ্বাণী খালেদা জিয়া কীভাবে দিয়েছিল। কারণ তাদের চক্রান্তই ছিল আমাকে তারা হত্যা করে ফেলবে। তাহলে তো আমি কিছুই হতে পারব না। এটাই তাদের চক্রান্ত ছিল।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, আমার ছেলে সজীব ওয়াজেদ জয়কে কিডন্যাপ করে হত্যার পরিকল্পনা হয়েছিল। আমেরিকার গোয়েন্দা সংস্থা এফবিআইয়ের তদন্তে এটা বের হয়ে আসে। তদন্তে পরিকল্পনাকারী বিএনপি নেতারা ধরা পড়ে। পরে সে দেশে তাঁদের সাজাও হয়। আদালতের রায়ে বিএনপি নেতা মাহবুবুর রহমান ও শফিক রেহমানের নাম বেরিয়ে আসে। তারেক রহমানের সঙ্গে যোগাযোগ করে তাঁরা এ পরিকল্পনা করেছিলেন। তাঁদের পরিকল্পনা ছিল জয়কে কিডন্যাপ করে হত্যা করা।

২১ আগস্ট ওই গ্রেনেড হামলার সময় হানিফ ভাইয়ের কথা সব সময় মনে পড়ে। হানিফ ভাইসহ সবাই আমাকে যেভাবে ঘিরে রেখেছিল, আমি জানি না এমন একটা অবস্থায় কোনো মানুষ বাঁচতে পারে কি না। আল্লাহই বোধ হয় হাতে তুলে আমাকে বাঁচিয়েছিল। আমাদের নেতাকর্মীরা মানবঢাল তৈরি করে সেদিন আমাকে রক্ষা করেছিল।

সংবাদের ধরন : র্শীষ সংবাদ নিউজ : নিউজ ডেস্ক