বিস্তারিত

নির্বাচনী সহিংসতা : যশোরে বোমা হামলায় আহত ১৭

bdnews ছবি : সংগ্রহকৃত

যশোরে বোমা হামলায় বিএনপি সমর্থিত প্রার্থীর ১২ সমর্থক আহত হয়েছে। শনিবার রাতে সদর উপজেলার লেবুতলা ইউনিয়নে বোমা হামলার ঘটনা ঘটে।এ ঘটনায় আহতরা হলেন, সদর উপজেলার লেবুতলা গ্রামের শামীম হোসেন (১৮), মিন্টু (৪৫), তাহাজ্জত আলী (৪৫), আব্দুল মান্নান (৩৮), দেবালয় গ্রামের এহসান কবীর (২৫), রামকৃষ্ণপুরের জাহিদ (৩০), বিজয়নগরের লালমিয়া (৫৫), পাঁচবাড়িয়া গ্রামের মানিক (৩২), শহরের পূর্ব বারান্দিপাড়ার গাজী নাসিরউজ্জামান (৩৪), শংকরপুরের ইয়ার হোসেন (১৮), মধুগ্রামের আব্দুল হালিম (২৭) ও মণিরামপুর উপজেলার মদনপুর গ্রামের আবু সাঈদ (২৫)।আহতরা জানান, লেবুতলা ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে এলাকায় ত্রাস সৃষ্টির লক্ষ্যে আওয়ামী লীগের চেয়ারম্যান প্রার্থী আলিমুজ্জামান মিলন সমর্থীত সন্ত্রাসীরা ৮ থেকে ১০টি মোটরসাইকেল নিয়ে শনিবার রাত ১০টার দিকে লেবুতলা ইউনিয়নের বটতলা বাজারে আসে। এ সময় তারা ৮ থেকে ১০টি বোমার বিস্ফোরণ এবং দুই রাউন্ড ফাঁকা গুলি ছোড়ে। এতে পথচারীসহ অন্তত ১২ জন আহত হয়। স্থানীয়রা তাদের উদ্ধার করে যশোর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করে। তবে এ ঘটনায় নিজেদের সম্পৃক্ততা নেই বলে দাবি করেছেন আওয়ামী লীগ নেতারা। তাদের দাবি বিএনপি প্রার্থীর লোকেরা এসব ঘটিয়েছে।
একই রাতে সদর উপজেলার নওয়াপাড়া ইউপি চেয়ারম্যান প্রার্থী নাসরিন সুলতানা খুশির প্রধান নির্বাচনী কার্যালয়ে বোমা হামলার ঘটনা ঘটে। এসময় খুশির পাঁচ সমর্থক আহত হয়েছে।
সদর উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি মোহিত কুমার নাথ জানান রাত ৮ টা ২০ মিনিটের দিকে কে বা কারা সেখানে একটি বোমা মেরে পালিয়ে যায়। এসময় নৌকা প্রতীকের চেয়ারম্যান প্রার্থী কার্যালয়ের পাশে নিজের গাড়িতে এশার নামাজ পড়ছিলেন।
এ ঘটনায় নূরপুর গ্রামের মাহমুদুল ইসলাম (২০), মধুগ্রামের সোহাগ (৩০) ও বোলপুর গ্রামের টুটুল (৩২) সহ ৫ জন আহত হয়েছে। তাদেরকে যশোর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসা দেওয়া হয়েছে।
চেয়ারম্যান প্রার্থী নাসরিন সুলতানার অভিযোগ, নির্বাচনী প্রচারণা শেষে শেখহাটি বাবলাতলা এলাকায় পৌছলে অজ্ঞাত দুর্বৃত্তরা তার মাইক্রোবাস লক্ষ্য করে একটি হাতবোমা নিক্ষেপ করে পালিয়ে যায়।
কোতয়ালী মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ ইলিয়াস হোসেন জানিয়েছেন, উভয় ঘটনায় সন্ত্রাসীদের পুলিশ আটকের চেষ্টা চালাচ্ছ।

সংবাদের ধরন : র্শীষ সংবাদ নিউজ : স্টাফ রিপোর্টার