বিস্তারিত

নিজের পাঁচতারা হোটেল খুলে দিলেন কোয়ারেন্টাইনের জন্য

ছবি : সংগ্রহকৃত

করোনা আতঙ্কে কাঁপছে সারা বিশ্ব। ভারতেও বেড়েই চলেছে আক্রান্তের সংখ্যা। অভিনেত্রী আয়েশা টাকিয়া এবার সাহায্যের হাত বাড়ালেন। নিজেদের পাঁচতারা হোটেলের দরজা খুলে দিলেন আয়েশা ও তাঁর স্বামী ফারহান আজমি।

আয়েশা জানিয়েছেন, আমাদের ”গালফ হোটেলের” দরজা খুলে দিয়েছি, যাতে বিএমসি তাকে কোয়ারেন্টাইনে পরিণত করতে পারে। এই দুর্দিনে আমরা পরস্পরের পাশেই আছি। ইতিমধ্যেই হোটেল দিয়ে দিয়েছি বিএমসিকে।

যে হারে আক্রান্তের সংখ্যা বাড়ছে তাতে কোয়ারেন্টাইনের সংখ্যার ঘাটতিও হতে পারত। কিন্তু এমতবস্থায় এগিয়ে আসছেন তারকা ও শিল্পপতীরা। তাঁরা কোয়ারেন্টাইন বানানোর জন্য নিজেদের হোটেল বা অফিসের দরজা খুলে দিচ্ছেন। কিছুদিন আগে শাহরুখ খান ও গৌরী খান মুম্বইয়ে নিজেদের চারতলা অফিসকে কোয়ারেন্টাইন করার জন্য় দিয়ে দিয়েছেন।

বৃহনমুম্বই মিউনিসিপাল কর্পোরেশন তাদের টুইটারে পোস্ট করেছেন, শিশু, মহিলা ও প্রবীণদের জন্য কোয়ারেন্টাইন করার জন্য নিজেদের ব্যক্তিগত চারতলা অফিস দিয়েছেন শাহরুখ খান ও গৌরী খান। এর জন্য ওঁদের ধন্যবাদ জানাই।

অভিনেতা সোনু সুডও একই পথে হেঁটেছেন। এই মুহূর্তে নিজেদের পরিবারের থেকে দূরত্ব বজায় রাখতে হচ্ছে চিকিৎসক, নার্স ও স্বাস্থ্যকর্মীদেরও। কারণ তাঁরা অনেক কাছ থেকে করোনার রোগীদের চিকিৎসা করছেন এবং তাঁদের সংক্রামিত হওয়ার সম্ভাবনাও বেশি। তাই মুম্বইতে নিজের হোটেলে তাঁদের থাকার ব্যবস্থা করলেন সোনু সুদ।

সর্বভারতীয় সংবাদমাধ্যমের কাছে সোনু বলছেন, দেশের চিকিৎসক, নার্স ও স্বাস্থ্যকর্মীদের জন্য আমি যে সামান্য কাজ করতে পারছি তা আমারই সৌভাগ্য। ওঁরা মানুষকে বাঁচানোর জন্য দিন রাত এক করে কাজ করছেন। ওঁরা প্রত্যেকেই মুম্বইয়ের ভিন্ন এলাকার বাসিন্দা। কিন্তু ওঁদেরও বিশ্রামের জন্য একটা জায়গা প্রয়োজন। আমরা ইতিমধ্যেই পুরসভার ও বেসরকারি হাসপাতালে এই ব্যবস্থার কথা জানিয়েছি।

সংবাদের ধরন : বিনোদন নিউজ : নিউজ ডেস্ক