বিস্তারিত

দুই ঈদে বিদেশি ছবি আমদানি ও প্রদর্শনের ওপর নি‌ষেধাজ্ঞা

ছবি : সংগ্রহকৃত

bd news,bdnews,bdnews24,bdnews24 bangla,bd news 24,bangla news,bangla,bangla news paper,all bangla newspaper,bangladesh newspapers,all bangla newspaper,bangla news paper,bangladesh newspapers,all bangla newspapers,bd news 24,bangla news today,bd news paper,all bangla news paper,bangladeshi newspaper,all bangla newspaper,all bangla newspapers,bdnews,bangla news,bangla newspaper,bangla news paper,bangla news 24,banglanews,bd news 24,bangla news today,bd news paper,all bangla news paper,bangladeshi newspaper,all bangla newspaper,all bangla newspapers

দুই ঈদ, পূজা ও পহেলা বৈশাখের সময় বিদেশি ছবি আমদানি, প্রদর্শনের ওপর নি‌ষেধাজ্ঞা দিয়েছেন আপিল বিভাগ। ত‌বে যৌথ প্রযোজনায় নির্মিত সি‌নেমা প্রদর্শ‌নে বাধা নেই ব‌লে সিদ্ধান্ত দি‌য়ে‌ছেন স‌র্বোচ্চ আদালত।

বিদেশি ও যৌথ প্রযোজনার সি‌নেমা আমদা‌নি‌ ও প্রদর্শনী‌তে নি‌ষেধাজ্ঞা দি‌য়ে হাইকোর্টের আদে‌শের বিরুদ্ধে করা আবেদন নিষ্পত্তি করে বুধবার প্রধান বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেনের নেতৃত্বাধীন তিন সদস্যের আপিল বেঞ্চ এ আদেশ দেন।

আদালতে নীপা এন্টারপ্রাইজের স্বত্বাধিকারী সেলিনা বেগমের পক্ষে শুনানি করেন আইনজীবী আজমালুল হক কিউসি। সঙ্গে ছিলেন ব্যারিস্টার এম মনিরুজ্জামান আসাদ। অন্যদিকে হাইকোর্টের আদেশ স্থগিত চাওয়া আবেদনের পক্ষে শুনানি করেন আইনজীবী এএম আমিন উদ্দিন।

পরে এম মনিরুজ্জামান আসাদ বলেন, বিদেশি সিনেমা আমদানি ও প্রদর্শনের ফলে দেশি সিনেমায় দর্শক পাওয়া যাচ্ছে না। তাই নীপা এন্টারপ্রাইজের স্বত্বাধিকারী সেলিনা বেগম সংক্ষুব্ধ হয়ে একটি রিট দায়ের করেন। হাইকোর্ট ওই রিটের পরিপ্রেক্ষিতে যৌথ প্রযোজনাসহ সব আমদানি সিনেমার ওপর নিষেধাজ্ঞা জারি করেন।

তিনি আরও বলেন, এরপর সে আদেশ স্থগিত চেয়ে আপিলে আবেদন জানায় চলচ্চিত্র প্রদর্শক সমিতির সভাপতি মো. ইকতেদার উদ্দিন নওশাদ। আদালত সে আবেদনের শুনানি নিয়ে হাইকোর্টের আদেশ কিছুটা মোডিফাই করেছেন। এর ফলে দেশে যৌথ প্রযোজনার ছবি চলতে বাধা নেই। তবে আমদানি করা সিনেমা প্রদর্শনে হাইকোর্টের নিষেধাজ্ঞা বহালই থাকছে।

প্রসঙ্গত, নীপা এন্টারপ্রাইজের স্বত্বাধিকারী সেলিনা বেগমের এক রিট আবেদনের শুনানি নিয়ে গত ১০ মে হাইকোর্ট দেশে যৌথ প্রযোজনাসহ সব প্রকার বিদেশি সিনেমা আমদানি ও প্রদর্শনের ওপর নিষেধাজ্ঞা জারি করেন। বিচারপতি সালমা মাসুদ চৌধুরী এবং বিচারপতি একেএম জহিরুল হক রুলসহ এ আদেশ দেন।

এরপর হাইকোর্টের আদেশ স্থগিত চেয়ে সুপ্রিমকোর্টের চেম্বার আদালতে আবেদন করা হয়। পরে সে আবেদন শুনানির জন্য আপিল বিভাগের পূর্ণাঙ্গ বেঞ্চে পাঠানো হয়। এর পরিপ্রেক্ষিতে বুধবার আবেদনটির শুনানি শেষে আপিল বিভাগ ওই আদেশ দেন।

সংবাদের ধরন : বাংলাদেশ নিউজ : নিউজ ডেস্ক