বিস্তারিত

দাঙ্গা ছড়িয়ে পড়েছে গ্রিক-ম্যাসিডোনিয়া সীমান্তে

ছবি : সংগ্রহকৃত

গ্রিক এবং ম্যাসিডোনিয়া সীমান্তের কাঁটাতারের বেড়ার পাশে প্রতিমুহূর্তেই বাড়ছে ভূমধ্যসাগর পাড়ি দিয়ে যাওয়া শরণার্থীর সংখ্যা। ইতিমধ্যেই তারা বেশ কয়েকবার বেড়া ভাঙ্গার চেষ্টা করেছে। এতে করে পুলিশ ও শরণার্থীদের মধ্যে ধীরে ধীরে দাঙ্গা ছড়িয়ে পড়ছে। রোববার শরণার্থীদের একটি দল লোহার সাইনবোর্ডের খুঁটির সাহায্যে ধাক্কা দিয়ে ভেঙ্গে ফেলেছে সীমান্তের কাঁটাতারের বেড়ার একটি অংশ। এতে করে পুলিশের সাথে শরণার্থীদের দাঙ্গা ছড়িয়ে পড়ে।   সংবাদ মাধ্যম বিবিসি জানিয়েছে, গ্রীসের ইদোলমেনি ক্যাম্পের পাশের এই সীমান্তের বেড়া ভেঙ্গে ফেলার পর শরণার্থীদের উপর পাল্টা টিয়ার গ্যাস নিক্ষেপ এবং লাঠিচার্জ শুরু করে পুলিশ। শরণার্থীরা বেড়ার একটি অংশ ভাঙতে সমর্থ হলেও কতোজন ভিতরে ঢুকতে পেরেছে সেটা এখনো নিশ্চিত না। এই সমস্ত শরণার্থীদের বেশিরভাগই যুদ্ধ বিধ্বস্ত সিরিয়া এবং ইরাক থেকে আগত। গ্রিক সীমান্তের পাশে এই মুহূর্তে প্রায় ৬ হাজার ৫শ’ জন মানুষ আটকা পড়ে আছেন। ম্যাসি

ডোনিয়া থেকেও খুব কম মানুষকে ভেতরে প্রবেশ করতে দেয়া হচ্ছে। খাবার এবং ওষুধ না থাকায় শরণার্থীদের অবস্থা ভালো নয়।

 বিবিসি

 

এদিকে শরণার্থীদের নিয়ে অনেক দিন ধরেই সঙ্কটে ভুগছে গোটা ইউরোপ। প্রায় ১০ লাখ শরণার্থী আশ্রয় দিয়েছে জার্মানি। ইউরোপের অন্যান্য দেশেও ঠাই হয়েছে অনেকের। কিন্তু এখন আর নতুন করে কাউকে আশ্রয় দিতে রাজি নয় ইউরোপের দেশগুলো।

সংবাদের ধরন : আন্তর্জাতিক নিউজ : স্টাফ রিপোর্টার