বিস্তারিত

তারানা হালিম, লাইনে দাঁড়িয়ে সিম নিবন্ধন করলেন

bdnews24 ছবি : সংগ্রহকৃত

bd news,bdnews,bdnews24,bdnews24 bangla,bd news 24,bangla news,bangla,bangla news paper,all bangla newspaper,bangladesh newspapers,all bangla newspaper,bangla news paper,bangladesh newspapers,all bangla newspapers,bd news 24,bangla news today,bd news paper,all bangla news paper,bangladeshi newspaper,all bangla newspaper,all bangla newspapers,bdnews,bangla news,bangla newspaper,bangla news paper,bangla news 24,banglanews,bd news 24,bangla news today,bd news paper,all bangla news paper,bangladeshi newspaper,all bangla newspaper,all bangla newspapers

ডাক ও টেলিযোগাযোগ প্রতিমন্ত্রী তারানা হালিম লাইনে দাঁড়ালেন জাতীয় পরিচয়পত্রের ফটোকপি ছবি ও আঙ্গুলের ছাপ দিয়ে বায়োমেট্রিক পদ্ধতিতে নিজের ব্যবহার করা টেলিটক সিম নিবন্ধন করলেন।

গাড়ি থেকে নেমে ফুটপাত ধরে হাঁটা শুরু। কাপড়ে মুখ ঢেকে প্রটোকল ছাড়াই একটি কাস্টমার কেয়ার সেন্টারে প্রবেশ করলেন তিনি। সেখানে তখন গিজগিজ করছে গ্রাহক। গ্রাহকদের উদ্বুদ্ধ করতে সামাজিক আন্দোলনের অংশ হিসেবে নিজেই নিজের ব্যবহার করা সিম নিবন্ধন করতে রোববার (২৭ মার্চ) বিকেলে বের হয়েছিলেন তারানা হালিম।
বেলা দুইটার পর সচিবালয় থেকে প্রটোকল নিয়ে বের হন প্রতিমন্ত্রী। সঙ্গে থাকা সাংবাদিকরা জানেন না কোথায় যাবেন তিনি। বিকাল তিনটার দিকে গাড়ি গিয়ে থামলো ফার্মগেট এলাকায় গ্রামীণফোন কাস্টমার কেয়ার সেন্টার থেকে খানিক দূরে।
গাড়ি থেকে নেমে প্রোটোকল ছাড়াই ফুটপাত ধরে হাঁটা শুরু করলেন প্রতিমন্ত্রী। প্রথমে গ্রামীণফোন কাস্টমার কেয়ার সেন্টারে প্রবেশ করলেন। এর কিছু পর সাংবাদিকরা প্রবেশ করে তাকে লাইনেই দাঁড়িয়ে থাকতে দেখলেন। অপেক্ষা করলেন প্রায় মিনিট দশেক। হাতের কাগজে তখনও মুখ ঢাকা।
লাইনে নিজের পর্বে এসে তারানা হালিম মুখ ঢেকেই গ্রামীণফোন কর্মীর হাতে জাতীয় পরিচয়পত্রের ফটোকপি ও ছবি তুলে দিয়ে নির্দিষ্ট ফরম পূরণ করলেন। আঙ্গুলের ছাপ দিলেন। একজন ফটো সাংবাদিক ছবি তোলার সময় কর্মীরা টের পেলেন তিনি বিশেষ কেউ। আর যিনি তথ্য যাচাই করছেন তিনি নাম দেখেই চিনতে পারলেন। শেষ হলো প্রতিমন্ত্রীর একটি সিম যাচাই।
প্রতিমন্ত্রীর সিমের তথ্য যাচাইকারী গ্রামীণফোন কর্মী বলেন যখন পরিচয়পত্রে নাম দেখলাম তখনই চিনতে পারি।

কোনোভাবেই সিমের তথ্য সংরক্ষণ করা হচ্ছে না জানিয়ে এ সময় তিনি বলেন শুধু মিলিয়ে দেখা হচ্ছে। যারা এখানে আছেন তাদের উৎসাহ-উদ্দীপনাটা দেখলাম। ভালো লাগল। আমার তিনটি গ্রামীণ সিমের মধ্যে দু’টি আমার সঙ্গে না থাকায় তারা ফিরিয়ে দিয়েছে। হয়তো কাল-পরশু ওই দু’টি সিম নিয়ে আবার আসবো। আমার ব্যক্তিগত সিমটি আজ রেজিস্ট্রেশন করলাম।

হাইকোর্টে রিট প্রসঙ্গে প্রতিমন্ত্রী বলেন, একটা অপপ্রচার চলছে। হাইকোর্টে যে রিট হয়েছে আমরা আমাদের তথ্য উপস্থাপন করবো। তথ্যের ভিত্তিতে আমরা দেখাবো কোথাও তথ্য সংরক্ষণ করা হচ্ছে না। প্রযুক্তিগত তথ্যের কাছে প্রোপাগান্ডা টিকতে পারে না। নাগরিকের নিরাপত্তর জন্যই এ নিবন্ধনের উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে।এ সময় তারানা হালিম বলেন, আগামী ৩০ এপ্রিলের পর সিম কিছু সময় বন্ধ রেখে বার্তা পৌঁছে দেয়া হবে যে আপনার সিমটি নিবন্ধিত হয়নি। পরে একটা পর্যায়ে স্থায়ীভাবে বন্ধ করে দেওয়া হবে।

সংবাদের ধরন : বাংলাদেশ নিউজ : মো : মাহবুব রানা