বিস্তারিত

জো বাইডেনকে অভিনন্দন জানিয়েছে চীন

ছবি : সংগ্রহকৃত

মার্কিন প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে জয়ী জো বাইডেনকে অভিনন্দন জানিয়েছে চীন। বাইডেনের জয়ের পর তাঁকে অভিনন্দন জানান বিশ্বের বেশির ভাগ দেশের নেতারা। তবে এ বিষয়ে এত দিন চুপ ছিল চীন।

আজ শুক্রবার যুক্তরাষ্ট্রের পরবর্তী প্রেসিডেন্টকে তাঁর জয়ের জন্য অভিনন্দন বার্তা পাঠিয়েছে চীন। দেশটির পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের এক মুখপাত্র এই অভিনন্দন বার্তা পাঠান, খবর বিবিসির।

পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র ওয়ান ওয়েবিন বলেন, আমরা আমেরিকার মানুষের পছন্দকে শ্রদ্ধা করি। আমরা মি. বাইডেন ও মিসেস হ্যারিসকে অভিনন্দন জানিয়েছি।

করোনাভাইরাস ইস্যুতে যুক্তরাষ্ট্র-চীন সম্পর্কের অবনতি হয়েছে। ডোনাল্ড ট্রাম্পের শেষ সময়ে বাণিজ্য, গুপ্তচর ও করোনা মহামারি ইস্যুতে দুই দেশের মধ্যে সম্পর্ক উত্তপ্ত হয়ে ছিল। অথচ ২০১৬ সালে প্রেসিডেন্ট হিসেবে ট্রাম্প নির্বাচিত হওয়ার পর চীনের প্রেসিডেন্ট শি জিনপিং তাঁকে ওই দিনই অভিনন্দন জানিয়েছিলেন। তবে এবার সম্পর্কের টানাপড়েনের মধ্যে চীন বাইডেনকে অভিনন্দন জানাবে কি না, তা নিয়ে কৌতূহল ছিল সবার। তবে সেই নীরবতা ভেঙে চীনের পক্ষ থেকে আনুষ্ঠানিকভাবে অভিনন্দন জানানো হয় বাইডেনকে।

নব নির্বাচিত মার্কিন প্রেসিডেন্টকে রাশিয়াও এখন পর্যন্ত অভিনন্দন জানায়নি। চার বছর আগে ডোনাল্ড ট্রাম্প যখন প্রেসিডেন্ট নির্বাচিত হয়েছিলেন তখন তাকে অভিনন্দন জানানো প্রথম কয়েকজন রাষ্ট্র নেতার মধ্যে ছিলেন ভ্লাদিমির পুতিন। তবে এবার জো বাইডেনের ক্ষেত্রে এখন পর্যন্ত কোনো টুইট, টেলিগ্রাম বা ফোন কলও করেননি রুশ প্রেসিডেন্ট।

ক্রেমলিনের মুখপাত্র দিমিত্রি পেসকভ সাংবাদিকদের বলেছেন, “আমাদের বিশ্বাস, নির্বাচনের আনুষ্ঠানিক ফলাফল না আসা পর্যন্ত অপেক্ষা করাটাই সঠিক কাজ।”

শনিবার মার্কিন সংবাদমাধ্যমগুলো জো বাইডেনের নির্বাচনে জয়ের পূর্বাভাস সম্পর্কে খবর প্রকাশ করা শুরু করার পর থেকে বিভিন্ন রাষ্ট্রের নেতারা মি. বাইডেনকে ফোন করে অভিনন্দন জানানো শুরু করেন।

প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প অবশ্য কোনো ধরণের প্রমাণ ছাড়াই নির্বাচনে কারচুপির অভিযোগ করে আসছেন। বৃহস্পতিবার কেন্দ্রীয় ও অঙ্গরাজ্য ভিত্তিক কয়েকজন নির্বাচন কর্মকর্তা প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের ঐ দাবি বাতিল করে দেন। তারা মন্তব্য করেন যে ভোটগ্রহণ ‘আমেরিকার ইতিহাসে সবচেয়ে নিরাপদ’ ছিল।

সংবাদের ধরন : আন্তর্জাতিক নিউজ : নিউজ ডেস্ক