বিস্তারিত

খাসোগি হত্যাকাণ্ডকে জঘন্য বলে অভিহিত করেন যুবরাজ

ছবি : সংগ্রহকৃত

তুরস্কের ইস্তাম্বুলে সৌদি কনস্যুলেটে সৌদি সাংবাদিক জামাল খাসোগি হত্যা প্রসঙ্গে প্রথমবারের মতো প্রকাশ্যে মুখ খুলেছেন সৌদি যুবরাজ মোহাম্মদ বিন সালমান। ওই হত্যাকাণ্ডকে ‘জঘন্য’ ও ‘অপ্রয়োজনীয়’ বলে অভিহিত করেন তিনি।

গতকাল বুধবার সৌদি আরবের রাজধানী রিয়াদে আন্তর্জাতিক বিনিয়োগকারীদের অংশগ্রহণে আয়োজিত বিশাল এক সম্মেলনে মোহাম্মদ বিন সালমান এসব কথা বলেন।

সম্মেলনে কথা বলার সময় খাসোগি হত্যাকাণ্ডকে ‘জঘন্য’ অভিহিত করে এর সঙ্গে জড়িতদের অবশ্যই বিচারের আওতায় আনা হবে বলে জনসমক্ষে প্রতিশ্রুতি ব্যক্ত করেন যুবরাজ। তিনি বলেন, এ হত্যাকাণ্ড সৌদি আরববাসীর জন্য খুবই বেদনার। সারা বিশ্বের মানুষের জন্যই এটা বেদনার। এটা খুবই অপ্রয়োজনীয় ছিল।

যুবরাজ আরো বলেন, বিশ্বের কাছে আমরা প্রমাণ করব যে সৌদি আরব ও তুরস্ক এ দুই দেশ পারস্পরিক সহযোগিতার মাধ্যমে অপরাধী যেই হোক, তাকে বিচারের আওতায় নিয়ে আসবে। শেষ পর্যন্ত ন্যায়বিচারেরই জয় হবে। তুরস্কের সঙ্গে আমাদের খুব ভালো সম্পর্ক আছে। আমরা চাই না, এ ঘটনার কারণে তা কোনোভাবেই বাধাগ্রস্ত হোক। যত দিন সালমান বিন আবদুল আজিজ আমাদের বাদশা, তত দিন তা হওয়ার কোনো সম্ভাবনা নেই।

গত ২ অক্টোবর বিয়ে-সংক্রান্ত কাগজপত্র সংগ্রহ করতে তুরস্কের ইস্তাম্বুলের সৌদি কনস্যুলেটে যান খাসোগি। বাগদত্তা তুর্কি নারী হেতিজ জেঙ্গিসকে বাইরে রেখে কনস্যুলেটে প্রবেশের পর আর ফেরেননি তিনি।

এ নিয়ে তুরস্ক ও সৌদি সরকার একে অপরকে দোষারোপ করে আসছিল। সৌদি আরব বলে আসছিল, কনস্যুলেট থেকে বেরিয়ে যাওয়ার পর নিখোঁজ হয়েছেন খাসোগি।

এদিকে সৌদি আরব এ ঘটনায় জড়িত সন্দেহে এযাবৎ উচ্চপদস্থ কর্মকর্তা সৌদ আল-কাহতানিসহ পাঁচজনকে বরখাস্ত ও ১৮ জনকে গ্রেপ্তার করেছে।

সংবাদের ধরন : আন্তর্জাতিক নিউজ : নিউজ ডেস্ক