বিস্তারিত

কোয়াডে যোগ দিলে বাংলাদেশ ও চীনের সম্পর্ক যথেষ্ট খারাপ হবে

ছবি : সংগ্রহকৃত

চার দেশীয় জোট কোয়াডে বাংলাদেশের অংশগ্রহণ বাংলাদেশ ও চীনের দ্বিপাক্ষিক সম্পর্ককে যথেষ্ট খারাপ করবে বলে মন্তব্য করেছেন বাংলাদেশে নিযুক্ত চীনের রাষ্ট্রদূত লি জিমিং। তিনি বলেন, যুক্তরাষ্ট্র, জাপান, ভারত ও অস্ট্রেলিয়ার কৌশলগত জোট কোয়াডকে চীনবিরোধী একটি ছোট গোষ্ঠী হিসেবে বিবেচনা করে বেইজিং।

আজ সোমবার কূটনৈতিক প্রতিবেদকদের সংগঠন ডিপ্লোম্যাটিক করেসপন্ডেন্টস অ্যাসোসিয়েশন বাংলাদেশ (ডিকাব) আয়োজিত এক ভার্চুয়াল অনুষ্ঠানে চীনের রাষ্ট্রদূত এ কথা বলেন। ব্রিফিংয়ে তিনি জানান, চীনের পাঁচ লাখ করোনা ভ্যাকসিন আগামী বুধবার ঢাকায় পৌঁছাবে।

২০০৭ সালে যুক্তরাষ্ট্র, ভারত, জাপান ও অস্ট্রেলিয়াকে নিয়ে কোয়াড গঠিত হয়। ২০১৭ সালে এটি পুনর্গঠিত হয়। শুরুতে এই জোট অর্থনৈতিক স্বার্থের কথা বললেও চীন মনে করে এই জোটটি মূলত কৌশলগতভাবে চীনবিরোধী একটি প্ল্যাটফর্ম।

কূটনৈতিক সাংবাদিকদের সঙ্গে এই আলাপে চীনা রাষ্ট্রদূত লি জিমিং তাঁর দৃষ্টিভঙ্গী তুলে ধরে বলেন, এতে নিরাপত্তার সংক্রান্ত উপাদান যুক্ত রয়েছে এবং তারা লক্ষ্য করছেন যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে সুর মিলিয়ে জাপানও এখানে চীনের বিরুদ্ধে বলছে। তাই চীন মনে করে, এই জোটে যেকোনো ভাবে বাংলাদেশের অংশগ্রহণ ঢাকা-বেইজিং সম্পর্ককে যথেষ্ট খারাপ করবে।

লি জিমিং বলেন, বাংলাদেশের জন্য ভালো হবে না এই ছোট জোটে শরিক হওয়া। এমনটা হলে তা বাংলাদেশ-চীন দ্বিপাক্ষিক সম্পর্ক নষ্ট করবে। আমরা চাই না বাংলাদেশ এই জোটে থাকুক।

গত মাসের শেষ সপ্তাহে চীনের প্রতিরক্ষামন্ত্রী জেনারেল ওয়েই ফেঙ্গি ঢাকা সফর করেন। এ সময় কোয়াড, আইপিএস বিষয়গুলো নিয়ে বাংলাদেশের সহযোগিতা চেয়েছিল চীন।

সংবাদের ধরন : র্শীষ সংবাদ নিউজ : নিউজ ডেস্ক