বিস্তারিত

কোভিড-১৯ মোকাবেলায় সফলতার দৃষ্টান্ত স্থাপন করল নিউজিল্যান্ড

ছবি : সংগ্রহকৃত

কোভিড-১৯ মোকাবেলায় সফলতার অনন্য দৃষ্টান্ত স্থাপন করল নিউজিল্যান্ড। জেসিন্ডা আরডার্ন সরকারের নেয়া পদক্ষেপের কারণে সহজেই করোনার বিপর্যয় থেকে উতরে গেছে দেশটির জনগণ।

নিউজিল্যান্ডে সোমবার নতুন করে কেউ করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়নি। দেশটিতে মোট আক্রান্ত হয়েছেন ১৪৯৭ জন। তাদের মধ্যে আবার ৯০ শতাংশই সুস্থ হয়ে উঠেছেন। করোনাজনিত কোভিড-১৯ রোগে আক্রান্ত হয়ে দেশটিতে এ পর্যন্ত ২১ জনের মৃত্যু হয়েছে। তবে নতুন করে এ রোগে আর কেউ মারা যায়নি।

হাসপাতালে থাকা দুজন করোনা রোগী নিবিড় পরিচর্যাকেন্দ্র (আইসিইউ) থেকে ওয়ার্ডে ফিরেছেন। বাকিরা বাড়িতে থেকেই চিকিৎসা নিচ্ছেন।

নিউজিল্যান্ডের প্রধানমন্ত্রী জেসিন্ডা আরডার্ন এ সপ্তাহে চলাফেরায় আরোপ করা কড়াকড়ি শিথিল করতে যাচ্ছেন। দোকানপাট, সিনেমা হল, খেলার মাঠ ও ব্যায়ামাগারগুলো খুলে দেয়া হবে বলে জানিয়েছেন তিনি। তবে সব জায়গায় বজায় রাখা হবে সামাজিক দূরত্ব। ১৮ মে থেকে স্কুলে স্বাভাবিক সময়ের মতো করে ক্লাস নেয়া শুরু হবে। ২১ মে পর্যন্ত বন্ধ থাকবে রেস্তোরাঁগুলো।

”জাসিন্ডা কেট লরেল আরডার্ন” ২০১৭ সালের ২৬শে অক্টোবর থেকে নিউজিল্যান্ডের ৪০তম এবং বর্তমান প্রধানমন্ত্রীর দায়িত্ব পালন করছেন। এছাড়াও তিনি ২০১৭ সালের ১লা আগস্ট থেকে নিউজিল্যান্ড লেবার পার্টির সভাপতির দায়িত্ব পালন করছেন। তিনি ২০০৮ সালের সাধারণ নির্বাচনে তালিকাভুক্ত সংসদ সদস্য হিসেবে প্রথম হাউজ অব রিপ্রেজেন্টেটিভসের জন্য নির্বাচিত হন।

২০০১ সালে ওয়াইকাটো বিশ্ববিদ্যালয় থেকে স্নাতক সম্পন্ন করে আরডার্ন তৎকালীন প্রধানমন্ত্রী হেলেন ক্লার্কের দপ্তরে গবেষক হিসেবে যোগদান করেন। তিনি পরবর্তী কালে যুক্তরাজ্যে ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী টনি ব্লেয়ারের নীতি-নির্ধারণী উপদেষ্টা হিসেবে কাজ করেন। ২০০৮ সালে তিনি ইন্টারন্যাশনাল ইউনিয়ন অব সোশ্যালিস্ট ইয়ুথের সভাপতি নির্বাচিত হন।

সংবাদের ধরন : আন্তর্জাতিক নিউজ : নিউজ ডেস্ক