বিস্তারিত

‘কল হো না হো’র ছোট্ট জিয়া এখন দেখতে!

ছবি : সংগ্রহকৃত

টেলিভিশনে ‘করিশ্মা কা করিশ্মা’ ধারাবাহিকে রোবটের চরিত্রে দেখা গিয়েছিল ঝনক শুক্লাকে। সেই সিরিয়ালে অভিনয় করে ব্যাপক জনপ্রিয়তা পেয়েছিলেন ঝনক। সে সময় তো দর্শকমহলে তার নামই হয়ে গিয়েছিল ‘দেশি রোবট’। কল্পবিজ্ঞানমূলক এই সিরিয়াল ছিল সময়ের থেকে এগিয়ে। সেখানে দেখানো হয়েছিল, একজন বিজ্ঞানী একটি রোবট তৈরি করেছেন। রোবটের নামই করিশ্মা। তাঁর পরিবারের আর কেউ জানে না করিশ্মা একজন রোবট। প্রতি এপিসোডে কোনও না কোনও সমস্যা সামাধান করে পরিবারকে রক্ষা করত যন্ত্রবালিকা করিশ্মা।

শুধু টেলিভিশনই নয়, অভিনয় করেছিলেন জিয়ার চরিত্রে শাহরুখ খান, প্রীতি জিন্টা ও সইফ আলি খানের ‘কল হো না হো’ ছবিতে। এখন তাঁর বয়স ২০ এবং সম্প্রতি সোশ্যাল মিডিয়ায় তিনি কয়েকটি ছবি পোস্ট করেছেন। আর তাতেই নতুন করে সোশ্যাল মিডিয়ায় ট্রেন্ডিং ঝনক শুক্লা।

২০০৩-এর ছবি কাল হো না হো-তে প্রীতি জিন্টার ছোট বোনের চরিত্রেও অভিনয় করেছেন তিনি। বি-টাউনের একটা বড় অংশের মতে, ঝনক যতটা ট্যালেন্টেড ছিলেন ততটা তাঁকে ব্যবহার করতে পারেনি বলিউড। বর্তমানে আন্ধেরির ভবনস কলেজে পড়াশোনা করেছেন ইতিহাস নিয়ে। ভবিষ্যতে আর্কিওলজি নিয়ে হায়ার স্টাডিজ করতে চান। হিন্দুস্তানি মিউজিকের চর্চা করেন নিয়মিত। অভিনয় নয়, বরং পড়াশোনা নিয়েই কেরিয়ার আরও এগিয়ে নিয়ে যেতে চান তিনি। কারণ ঝনকের বাবা-মা দুজনেই অভিনয় করেন। তাই ছোট থেকে এই পরিবেশে থেকে তাঁর মনে হয়েছে অ্যাক্টিং প্রফেশনটা বেশ হেকটিক। একটা ইচ্ছে রয়েছে। পছন্দের অভিনেতা রণবীর সিংয়ে সঙ্গে যদি স্ক্রিন শেয়ারের সুযোগ মিলত…। আপাতত সেই অপেক্ষাতেই রয়েছেন ঝনক।

তাঁর বাবা হরিল শুক্ল একজন তথ্যচিত্র পরিচালক। মা সুপ্রিয়া অভিনেত্রী। হিন্দি সিরিয়াল ও সিনেমায় পরিচিত মুখ। পরিণীতা, লগে রহো মুন্নাভাই, থ্রি ইডিয়াটস ছবিতে পার্শ্বচরিত্রে সুপ্রিয়ার অভিনয় নজর কেড়েছে দর্শকদের। পাশাপাশি, সিরিয়াল তেরে লিয়ে, কুমকুম ভাগ্য, কুণ্ডলী ভাগ্য-এও তাঁর কাজ মনে রাখার মতো। বাবা, মা আর বোনের সঙ্গে ঝনক থাকেন মুম্বইয়ে। তাঁর মা এখনও অভিনয় করেন। মা আর বোনের সঙ্গে ঝনকের সম্পর্ক বন্ধুর মতো। বিভিন্ন পোস্ট সে কথা তিনি জানাতেও ভোলেন না। ডেডলাইন: সির্ফ ২৪ ঘণ্টে ছবিতেও ঝনক স্ক্রিন শেয়ার করেছিলেন রজিত কাপুর, কঙ্কণা সেনশর্মা এবং ইরফান খানের সঙ্গে।

সংবাদের ধরন : বিনোদন নিউজ : নিউজ ডেস্ক