বিস্তারিত

‘এয়ার ইন্ডিয়া’ প্রবল আর্থিক সংকটে

ছবি : সংগ্রহকৃত

এয়ার ইন্ডিয়া প্রবল আর্থিক সংকটে। মোট ৩.২৬ বিলিয়ন মার্কিন ডলারের ঋণের বোঝা রাষ্ট্রায়ত্ত এই বিমান সংস্থার কাঁধে। অথচ খোদ কেন্দ্রীয় সরকারের কাছে রাষ্ট্রায়ত্ত এই বিমান সংস্থার প্রাপ্য ৮২২ কোটি টাকা। গত বছরের ৩০ নভেম্বর পর্যন্ত ভিভিআইপিদের চাটার্ড ফ্লাইট বাবদ কেন্দ্রের কাছে এয়ার ইন্ডিয়ার এই বিপুল পরিমাণ অর্থ প্রাপ্য বলে জানা গিয়েছে।

কেন্দ্রের কাছে এয়ার ইন্ডিয়ার বকেয়া প্রাপ্যের তালিকা এখানেই শেষ নয়। RTI-এর জবাবে এয়ার ইন্ডিয়া জানিয়েছে, আটকে পড়া ভারতীয়দের ফিরিয়ে আনার উড়ান বাবদ কেন্দ্রের কাছে তাদের আরও ৯.৬৯ কোটি টাকা প্রাপ্য। এছাড়া বিদেশি অভ্যাগতদের বিশেষ উড়ানের জন্য ১২.৬৫ কোটি টাকার একটি বিলও কেন্দ্রের কাছে পড়ে আছে।

রাষ্ট্রপতি, উপ-রাষ্ট্রপতি এবং প্রধানমন্ত্রীর মতো ভিভিআইপিদের জন্য চাটার্ড বিমানের ব্যবস্থা করে এয়ার ইন্ডিয়া। এই সংক্রান্ত বিল কেন্দ্রীয় মন্ত্রকের তরফে সাধারণত মিটিয়ে দেওয়া হয়।

এয়ার ইন্ডিয়ার ১০০ শতাংশ অংশীদারিত্ব বিক্রির সিদ্ধান্ত নিয়েছে কেন্দ্র সরকার। চলতি জানুয়ারি মাসের শেষেই সরকারি বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করা হয়। এয়ার ইন্ডিয়া কেনায় আগ্রহ প্রকাশ করেছে টাটা গোষ্ঠী। এয়ার ইন্ডিয়া কিনে নেওয়ার জন্যে টাটা গোষ্ঠী গাঁটছড়া বাঁধতে পারে সিঙ্গাপুর এয়ারলাইন্সের সঙ্গে। ইতোমধ্যে শুরু হয়ে গিয়েছে প্রাথমিক কথাবার্তা। জানা গিয়েছে মার্জার হতে পারে এয়ার এশিয়া (যেখানে টাটা গোষ্ঠীর ৫১ শতাংশ শেয়ার রয়েছে) এবং এয়ার ইন্ডিয়া এক্সপ্রেসের। এই মুহূর্তে সিঙ্গাপুর এয়ারলাইন্সের সঙ্গে যৌথভাবে ভিস্তারে এয়ারলাইন্স চালাচ্ছে টাটা গোষ্ঠী। এয়ার ইন্ডিয়াও তাদের দখলে চলে এলে ফুল সার্ভিস স্পেসে একাধিপত্য থাকবে টাটাদের হাতেই।

সংবাদের ধরন : আন্তর্জাতিক নিউজ : নিউজ ডেস্ক