বিস্তারিত

এদিকে করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা বাড়ছে নরসিংদীতে

ছবি : সংগ্রহকৃত

দেশে করোনা শনাক্ত হওয়া রোগীর সংখ্যা দাঁড়ালো মোট ৩৩৮২। এখন পর্যন্ত ঢাকা জেলাতেই সবচেয়ে বেশি করোনা আক্রান্ত ব্যক্তি শনাক্ত।

এদিকে করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা বাড়ছে নরসিংদীতে। গত ৭ এপ্রিল নরসিংদীতে প্রথম করোনা রোগী শনাক্তের পর থেকে এখন পর্যন্ত জেলায় সর্বমোট আক্রান্তের সংখ্যা ১৩৪ জনে দাঁড়িয়েছে।

এই অবস্থায় নরসিংদীকে করোনার নতুন “হটস্পট” হিসেবে চিহ্নিত করেছে আইইডিসিআর। আক্রান্ত ১৩৪ জন ছাড়াও গত শনিবার মাধবদীর পাইকারচর ইউনিয়নের পুরানচর এলাকায় আমির হোসেন (৪৪) নামে এক ব্যক্তি ঢাকার কুর্মিটোলা হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যায়। মৃত্যুর পর তার নমুনা পরীক্ষায় পজিটিভ রেজাল্ট আসে। এদিকে, জেলাজুড়ে আক্রান্ত হিসেবে শনাক্তদের প্রায় অর্ধেকই স্বাস্থ্যকর্মী বলে জানা গেছে।

গত শনিবার পর্যন্ত প্রকাশিত আক্রান্তদের তালিকায় ১০৪ জনের মধ্যে চারজন চিকিৎসকসহ স্বাস্থ্য বিভাগের মাঠ পর্যায়ের নানা পদের কর্মকর্তা-কর্মচারী মিলিয়ে মোট ৪৬ জন রয়েছেন। এতে জেলার সকল পর্যায়ের স্বাস্থ্যকর্মীদের পাশাপাশি জনসাধারণও আতঙ্কিত হয়ে পড়ছেন। আক্রান্ত স্বাস্থ্যকর্মীদের মধ্যে ৪ জন চিকিৎসকসহ বিভিন্ন পর্যায়ের ১৬ জন কর্মকর্তা ও ১৪ জন কর্মচারী এবং ১২ জন নার্স রয়েছেন। আক্রান্ত স্বাস্থ্যকর্মীদের সবাই নরসিংদীর দুইটি প্রধান হাসপাতালসহ উপজেলা পর্যায়ের স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সগুলোর কর্মী। আক্রান্তদের মধ্যে রয়েছেন জেলা স্বাস্থ্য তত্ত্বাবধায়ক, সিনিয়র স্বাস্থ্য শিক্ষা অফিসার, স্বাস্থ্য পরিদর্শক, স্বাস্থ্য সহকারী, ফার্মাসিস্ট, উপসহকারী মেডিক্যাল অফিসার, পরিসংখ্যানবিদ, স্টোর কিপার, গাড়িচালক, মালী, বাবুর্চি ও সুইপারের মত কর্মকর্তা ও কর্মচারীরা। এছাড়া নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ও পুলিশের উর্ধ্বতন কর্মকর্তা করোনা আক্রান্ত হয়েছেন বলে গুঞ্জন রয়েছে।

গত ৭ এপ্রিল পলাশ উপজেলায় জেলার প্রথম করোনা আক্রান্ত ব্যক্তিকে শনাক্ত করা হয়। পরদিন রায়পুরা উপজেলায় আরও একজনকে করোনা আক্রান্ত বলে ঘোষণা দেওয়া হয়। তারা দুজনেই নারায়ণগঞ্জ থেকে আক্রান্ত হয়ে নরসিংদীতে ফিরেছিলেন।

সংবাদের ধরন : বাংলাদেশ নিউজ : নিউজ ডেস্ক