বিস্তারিত

এডিস মশার পজিটিভ প্রজনন হার ৫১.৩৪ শতাংশ বহুতল ভবনে

ছবি : সংগ্রহকৃত

মৌসুম জরিপ ২০২০ উঠে আসে এডিস মশার পজিটিভ প্রজনন স্থানসমূহের শতকরা হার বহুতল ভবনে ৫১.৩৪ শতাংশ, নির্মানাধীন ভবনে ২০.৩২ শতাংশ, বস্তি এলাকায় ১২.৮৩ শতাংশ, একক ভবন সমূহে ১২.৫৭ শতাংশ এবং পরিত্যক্ত জমি সমূহে ২.৯৪ শতাংশ পরিলক্ষিত হয়।

আজ বৃহস্পতিবার বাংলাদেশ কলেজ অব ফিজিশিয়ানস অ্যান্ড সার্জনস (বিসিপিএস) এর অডিটোরিয়ামে `Dissemination on Monsoon Aedes Survey-2020’ এক সভা অনুষ্ঠিত হয়। এই সভায় এই তথ্য উপস্থাপন করা হয়।

গত মাসের ১৯শে জুলাই থেকে ২৮শে জুলাই পর্যন্ত স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের রোগ নিয়ন্ত্রণ শাখার আওতাধীন জাতীয় ম্যালেরিয়া নির্মূল ও এডিস বাহিত রোগ নিয়ন্ত্রণ কর্মসূচির কীটতাত্ত্বিক দলের অংশগ্রহণে ঢাকা উত্তর ও দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের বিভিন্ন মোট ১০০টি এলাকায় ২৯৯৯ টি বাড়িতে ডেঙ্গু, চিকুনগুনিয়া ও জিকা ভাইরাসের ভেক্টরের ওপর মৌসুম-২০২০ জরিপ কাজ পরিচালিত হয়।

সর্বোচ্চ বিআই ৪৩.৩ পাওয়া গিয়েছে ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের ১১ নং ওয়ার্ডের কল্যাণপুর, পাইকপাড়া ও মধ্য পাইকপাড়া এলাকায় এবং বিআই ৪০ পাওয়া গিয়েছে ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের ১৭ নং ওয়ার্ডের খিলখেত, কুড়িল ও নিকুঞ্জ এলাকায় এবং ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের ৫১ নং ওয়ার্ডের মীর হাজারিবাগ, ধোলাইপাড় ও গেন্ডারিয়া এলাকায় সর্বোচ্চ বিআই ৪০ পাওয়া গিয়েছে।

সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন মিজ জুয়েনা আজিজ, মুখ্য সমন্বয়ক (এসডিজি), প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়, ঢাকা এবং সভাপতিত্ব করেন অধ্যাপক ডা. শাহনীলা ফেরদৌসী, পরিচালক, রোগ নিয়ন্ত্রণ ও লাইন ডাইরেক্টর, সিডিসি। সভায় বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন পরিচালক এমআইএস, ডা. মো. হাবিবুর রহমানসহ অন্যান্য পরিচালক বৃন্দ, প্রধান স্বাস্থ্য কর্মকর্তা, ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশন ও স্বাস্থ্য কর্মকর্তা, দক্ষিণ সিটি করপোরেশন এবং স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের অন্যান্য কর্মকর্তাবৃন্দ।

সংবাদের ধরন : র্শীষ সংবাদ নিউজ : নিউজ ডেস্ক