বিস্তারিত

ইরাক থেকে মার্কিন সেনা প্রত্যাহারের আহবান

ছবি : সংগ্রহকৃত

ইরাক থেকে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের সেনা প্রত্যাহারের প্রক্রিয়া শুরু করতে দেশটির প্রতি আহবান জানিয়েছে ইরাক সরকার।

গত ৩ জানুয়ারি ইরানের মেজর জেনারেল কাসেম সোলাইমানিকে বাগদাদ বিমানবন্দরের কাছে ড্রোন হামলায় হত্যা করে মার্কিন বাহিনী, এরপর ইরাকি পার্লামেন্টে মার্কিন সেনা প্রত্যাহারের প্রস্তাব পাস হয়।

সোলাইমানি হত্যার ৫ দিনের মাথায় সে দেশের প্রধানমন্ত্রী আদেল আব্দুল-মাহদি যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্রমন্ত্রী মাইক পম্পেওকে লেখা চিঠিতে যুক্তরাষ্ট্রকে সেনা প্রত্যাহার শুরুর পরিকল্পনা নিতে বলেছেন। শুক্রবারের এক বিবৃতিতে মাহদি বলেছেন, মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী মাইক পম্পেওর সঙ্গে টেলিফোনে কথা বলেছি। ইরাকের পার্লামেন্টের রায় অনুযায়ী মার্কিন সেনা প্রত্যাহারের সিদ্ধান্ত বাস্তবায়ন করার প্রক্রিয়া শুরু করতে মার্কিন প্রতিনিধিদের বাগদাদে আসার আমন্ত্রণ জানিয়েছি।

দুই দেশের মধ্যকার চুক্তি লঙ্ঘন করে ইরাকের যেখানে-সেখানে মার্কিন সেনারা অবস্থান নেয় এবং কর্তৃপক্ষীয় অনুমতি ছাড়াই ড্রোন হামলা চালায় বলে অভিযোগ করেন মাহদি।

উল্লেখ্য, আইএসবিরোধী লড়াইয়ে সহায়তার জন্য মার্কিন বাহিনীকে আমন্ত্রণ জানিয়েছিল ইরাক। সোলাইমানি হত্যার পর পাস হওয়া প্রস্তাবে সরকারকে ওই আমন্ত্রণ বাতিল করতে বলা হয়েছে। পার্লামেন্টে দেওয়া বক্তব্যেও প্রধানমন্ত্রী মাহদি মার্কিন বাহিনীকে বহিষ্কারের পক্ষে মত দিয়েছিলেন।

সংবাদের ধরন : আন্তর্জাতিক নিউজ : নিউজ ডেস্ক