বিস্তারিত

ইউনাইটেড হাসপাতালের অগ্নিকাণ্ডে প্রাণ গেল “মাহবুব এলাহীর”

ছবি : সংগ্রহকৃত

রাজধানীর গুলশানের ইউনাইটেড হাসপাতালের করোনা ইউনিটে অগ্নিকাণ্ডে পাঁচ জনের মৃত্যু হয়েছে। পাঁচ জনের মধ্যে চার জন পুরুষ ও একজন নারী। নিহতরা হলেন- মাহবুব এলাহী চৌধুরী (৫৭), মনির হোসেন (৭৫), ভেরন অ্যান্থনি পল (৭৪), খোদেজা বেগম (৭০) ও রিয়াজ উল আলম (৫০)।

মাহবুব এলাহী চৌধুরী পেশায় একজন ব্যবসায়ী ছিলেন। ঠান্ডাজনিত সমস্যা নিয়ে গত ১৫ মে রাজধানীর ইউনাইটেড হাসপাতালে ভর্তি হয়েছিলেন। করোনা টেস্টের পরপর দুটি রিপোর্ট নেগেটিভ আসলেও করোনা ইউনিটেই চিকিৎসা চলছিলো তার। বুধবার রাতে ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ডে মাহবুবসহ ৫ জন মারা যান। বৃহস্পতিবার ভোরে আজিমপুর কবরস্থানে মাহবুব এলাহীকে দাফন করা হয়েছে।

মাহবুব এলাহীর ছোট ভাই সিনিয়র সাংবাদিক নাঈম আহমেদ জুলহাস বলেন, আমার আব্বার পরে আমাদের অভিভাবক ছিলেন আমার বড় ভাই মাহবুব এলাহী। ১৫ মে রাজধানীর ইউনাইটেড হাসপাতালে ভর্তি হয়েছিলেন। করোনা টেস্টের পরপর দুটি রিপোর্ট নেগেটিভ আসলেও করোনা ইউনিটেই চিকিৎসা চলছিলো তার। চিকিৎসকরা বলেছিল, তৃতীয়বার একটি করোনা টেস্ট করেই তাকে ছেড়ে দেওয়া হবে। সেই টেস্টের ফলাফল জানার আগেই আগুনে পুড়ে মারা গেলেন তিনি।

তিনি আরো বলেন, মহাখালী দক্ষিণপাড়ার বাসিন্দা মাহবুব এলাহী। মাহবুব এলাহীর এক ছেলে আনান চৌধুরী ও এক মেয়ে সুরাইয়া ওসমান চৌধুরী। তাদের দুজনেরই বিয়ে হয়েছে। ছেলে একটি কোম্পানিতে চাকরি করেন। অগ্নিকাণ্ডের ঘটনার ঘণ্টা দুয়েক আগেই হাসপাতালে বাবার খোঁজখবর নিতে গিয়েছিলেন ছেলে আনান চৌধুরী। আইসোলেশনে থাকায় বাবার সঙ্গে সাক্ষাৎ করতে না পেরে কর্তব্যরত চিকিৎসকের সঙ্গে কথা বলে বাসায় ফিরে আসেন। তার কিছুক্ষণ পরই জানতে পারেন তার বাবা আগুনে পুড়ে মারা গেছেন।

তিনি আরো বলেন, অগ্নিকাণ্ডের ঘটনায় হাসপাতাল কতৃপক্ষের গাফেলতি ছিলো। সঠিক তদন্ত করলেই সবকিছু বেরিয়ে আসবে। আমার ভাইয়ের জন্য দোয়া করবেন আল্লাহ যেন তাকে জান্নাত দান করেন।

ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের মেয়র আতিকুল ইসলামও আজ ইউনাইটেড হাসপাতাল পরিদর্শন করেছেন। পরিদর্শন শেষে মেয়র সাংবাদিকদের বলেন, হাসপাতালের সম্প্রসারিত অংশে ফায়ার ফাইটার, ফায়ার ড্রিল এবং ফায়ার-টিম ছিল না। ১২টি অগ্নিনির্বাপণ যন্ত্রের মধ্যে মাত্র তিনটির মেয়াদ ছিল। অন্য ৯ টি’ই অগ্নিনির্বাপণ যন্ত্র মেয়াদোত্তীর্ণ হয়ে যায়। হাইড্রেন্ট কে চালাবে, কে কাজ করবে, কার দায়িত্ব এগুলো সুনির্দিষ্ট করা ছিল না।

মেয়র বলেন, হাসপাতালে মানুষ ভর্তি হয় আরোগ্য লাভ করার জন্য, এটা অত্যন্ত বেদনাদায়ক যে তারা এখানে অগ্নিদুর্ঘটনায় মারা গেলেন।

ইউনাইটেড হাসপাতালে অগ্নিকাণ্ডের ঘটনায় ফায়ার সার্ভিস চার সদস্যের একটি তদন্ত কমিটি গঠন করেছে। দেবাশীষ বর্ধন তদন্ত কমিটির প্রধান।

সংবাদের ধরন : বাংলাদেশ নিউজ : নিউজ ডেস্ক