বিস্তারিত

আমার সৌভাগ্য যে, আমি বেঁচে আছি

ছবি : সংগ্রহকৃত

ঢাকা থেকে নেপালের কাঠমান্ডুর উদ্দেশে ছেড়ে যাওয়া ইউএস বাংলার একটি বিমান কাঠমান্ডু আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে বিধ্বস্ত হয়ে। বিমানের থাকা যাত্রী ও ক্রর মধ্যে ৫০ জনের মৃত্যুর খবর নিশ্চিত করেছে বার্তা সংস্থা রয়টার্স।

বিধ্বস্ত ইউএস-বাংলা এয়ারলাইন্সের বিমানটি থেকে বেঁচে রয়েছেন নেপালি বসন্ত বোহরা।

বসন্ত বলেছেন, ওই বিমানে তাদের কোম্পানির ১৬ জন নেপালি ছিলেন। তিনি বলেন, আমার মাথায় ও পায়ে আঘাত লেগেছে। আমার সৌভাগ্য যে, আমি বেঁচে আছি।

তিনি বলেছেন, আমি বিমানের জানালার কাছেই বসে ছিলাম। অকস্মাৎ বিমানটি ভয়ঙ্করভাবে দুলে উঠলো। কিছু বুঝে উঠার আগেই পিছন দিকে বিকশ শব্দ হলো। দুর্ঘটনায় কবলিত হওয়ায় আমি জানালা ভেঙ্গে ফেলতে সক্ষম হই। বাইরে বেরিয়ে আসার পর আমার কোনো চেতনা ছিল না।

কেউ একজন আমাকে নিয়ে যান হাসপাতালে। এভাবেই জীবন ফিরে পেয়েছি আমি। বসন্ত বোহরা নেপালের রাশ্বিতা ইন্টারন্যাশনাল ট্রাভেলস অ্যান্ড ট্যুরসের একজন কর্মচারী। তিনি ঢাকা এসেছিলেন প্রশিক্ষণ নিতে।

ঢাকা থেকে স্বাভাবিকভাবে উড্ডয়ন করে নেপালে বিধ্বস্ত ইউএস-বাংলার বিমানটি। কিন্তু তা নেপালের ত্রিভুবন আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরের কাছে যেতেই অদ্ভুত আচরণ দেখায়।

সংবাদের ধরন : র্শীষ সংবাদ নিউজ : নিউজ ডেস্ক