বিস্তারিত

আবার উত্তপ্ত ঈশ্বরদী, শ্বশুর-জামাই দ্বন্দ্ব

ছবি : সংগ্রহকৃত

আজ মঙ্গলবার সকালে পাবনার ঈশ্বরদী রেলস্টেশন এলাকায় আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীদের ওপর হামলার ঘটনা ঘটেছে। এতে কমপক্ষে পাঁচজন মারাত্মক আহত হয়েছেন। তাদের মধ্যে তিনজনের অবস্থা গুরুতর।

গুরুতর আহত তিন নেতা হলেন ঈশ্বরদী উপজেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক উপজেলা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি মাসুদ রানা ওরফে জি এস রানা (৩৫), পৌর যুবলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক শাহীনুজ্জামান ওরফে ওস্তাদ শাহীন (৪২) ও উপজেলা যুবলীগের সহসভাপতি হান্নান তারেক (৩০)।

ঈশ্বরদী পৌরসভার মেয়র ভূমিমন্ত্রীর জামাতা আবুল কালাম আজাদ মিন্টুর সমর্থকরা জানিয়েছেন, জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও ভূমিমন্ত্রী শামসুর রহমান শরীফ ডিলুর সমর্থকরা ঈশ্বরদী পৌরসভার মেয়র আবুল কালাম আজাদ মিন্টুর সমর্থকদের ওপর হামলা চালিয়েছে। সকালে তারা রাজশাহীর উদ্দেশে বাসা থেকে বের হলে এ ঘটনা ঘটে।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, প্রতিপক্ষের সন্ত্রাসীরা শাহীনুজ্জামান ওরফে ওস্তাদ শাহীনের হাত ও পায়ের রগ কর্তনসহ কুপিয়ে মারাত্মক জখম করায় সকালেই তাঁকে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। ঈশ্বরদী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে গুরুতর আহত অবস্থায় ভর্তি করা হয়েছে জি এস রানা ও হাসান তারেককে।

মেয়র মিন্টুর অনুসারীদের দাবি, ভূমিমন্ত্রী শামসুর রহমান শরীফ ডিলুর সশস্ত্র ক্যাডার যুবলীগ নেতা লিংকন ও রুহুল আমীন কুদ্দুসের নেতৃত্বে ১০ থেকে ১২ জনের একদল সন্ত্রাসী এই হামলা চালিয়েছে।

দলীয় সূত্রে জানা যায়, আজ ভোরে মেয়র মিন্টু গ্রুপের শাহীনুজ্জামান ওরফে ওস্তাদ শাহীন, ঈশ্বরদী উপজেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক জি এস মাসুদ রানা ও যুবলীগ নেতা হান্নান তারেক ভারতীয় ভিসার জন্য রাজশাহী যাওয়ার উদ্দেশে ঈশ্বরদী রেলওয়ে স্টেশনে ট্রেনে ওঠার জন্য অপেক্ষা করছিলেন। এ সময় মন্ত্রী পক্ষের অনুসারী যুবলীগ নেতা লিংকন ও কুদ্দুসের নেতৃত্বে একদল সশস্ত্র সন্ত্রাসী তাঁদের ওপর অতর্কিত হামলা চালায়। এ সময় সন্ত্রাসীরা তাঁদের বেধড়ক মারপিট করে। এরই একপর্যায়ে যুবলীগ নেতা শাহীনের হাত ও পায়ের রগ কেটে ফেলে।

সংবাদের ধরন : বাংলাদেশ নিউজ : নিউজ ডেস্ক