বিস্তারিত

আইফোনের লক খোলার অনুরোধ করছে মার্কিন সরকার

bangla news paper ছবি : সংগ্রহকৃত

বিশ্বের অন্যতম সেরা প্রযুক্তি প্রতিষ্ঠান অ্যাপল তাদের সাড়া জাগানো স্মার্টফোন আইফোনের ব্যবহারকারীদের প্রাইভেসি বিষয়ে খুবই সচেতন। এ কারণে তারা ক্রেতা ভিন্ন অন্য কারো কাছে স্মার্টফোনের লক খুলতে একেবারেই অনাগ্রহী। কিন্তু মার্কিন সরকারের পক্ষ থেকে দুটি স্মার্টফোনের লক খোলার জন্য অনুরোধ করছে অ্যাপলকে। এক প্রতিবেদনে বিষয়টি জানিয়েছে হিন্দুস্তান টাইমস। মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের বোস্টন ও ব্রুকলিন থেকে দুটি আইফোনের লক খোলার জন্য অ্যাপলকে অনুরোধ করা হয়েছে। এ অনুরোধ করেছিল মার্কিন আইনপ্রয়োগকারী সংস্থা এফবিআই।

তারা সন্ত্রাসী কার্যক্রমে ব্যবহৃত হচ্ছে এমন সন্দেহে আইফোন দুটির লক খুলতে চায়। এ জন্য আদালতের দ্বারস্থ হয় এফবিআই। তবে অ্যাপলের সিইও টিম কুক সম্প্রতি আইফোনের লক খোলার ব্যাপারে নেতিবাচক অবস্থান নেন। এ কারণে এফবিআইয়ের অনুরোধেও আইফোনের লক খোলেনি অ্যাপল। অবশ্য পরিস্থিতি পাল্টে যায় তার কয়েক দিন পরই। এফবিআই নিজস্ব প্রযুক্তি ব্যবহার করে আইফোনের লক খুলতে সক্ষম হয়। এরপর তারা লক খোলার সেই অনুরোধ প্রত্যাহার করে নেয়। আইফোন ৫সি মডেলের লক খোলার জন্য এফবিআই অ্যাপলের সহায়তা চেয়েও পায়নি।

পরে তারা স্মার্টফোনটি নিজস্ব প্রযুক্তি ব্যবহার করেই আনলক করতে সক্ষম হয়। কিন্তু অন্যান্য মডেলের আইফোনের লক খোলা সহজ হবে না বলে ধারণা করছে এফবিআই। আর এ কারণে তারা আইফোন আনলক করার ব্যবস্থা রাখার অনুরোধ করছে। নিউ ইয়র্ক টাইমস জানিয়েছে, আইফোন লক খোলার স্থায়ী ব্যবস্থা করার জন্য এফবিআই আইনি আশ্রয় নিয়েছে। এ ক্ষেত্রে ব্রুকলিনের একজন ড্রাগ ডিলারের স্মার্টফোন আনলক করতে চাইছে তারা। সে স্মার্টফোনটির অপারেটিং সিস্টেম ভিন্ন। এ বিষয়ে মার্কিন বিচার বিভাগের একজন মুখপাত্র জানান, ”এ ক্ষেত্রে আমাদের এখনও স্মার্টফোনটির তথ্য উদ্ধারের জন্য অ্যাপলের সহায়তা প্রয়োজন। এর আগে প্রায় ৭০টি ক্ষেত্রে এমন কাজ সম্ভব হয়েছে অল্প প্রচেষ্টাতেই।

সেগুলো আইওএস৭ বা তার আগের অপারেটিং সিস্টেম চালিত ছিল।” তবে স্মার্টফোন আনলক করার এ চাহিদাকে অ্যাপল মোটেই ভালো চোখে দেখছে না। এ ক্ষেত্রে তারা বিষয়টিকে নিয়ে আলোচনা করছে এবং তার প্রেক্ষিতে পরবর্তী করণীয় ঠিক করবে বলে জানিয়েছে। এ বিষয়ে আইফোন ব্যবহারকারীদের প্রাইভেসি লঙ্ঘিত হয় কি না, তা তাদের মূল বিবেচ্য। এ বিষয়ে আইনজীবীরা বলছেন, অ্যাপল যদি আইফোন আনলক করার পদ্ধতি এফবিআইকে জানিয়ে দেয় তাহলে তা বহু সাধারণ ব্যবহারকারীরও প্রাইভেসি লঙ্ঘনের কারণ হতে পারে।